আমরণ অনশনে ইবতেদায়ী মাদরাসা শিক্ষকরা

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি 


ইবতেদায়ী মাদ্রাসাকে জাতীয়করণের দাবিতে আমরণ অনশন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবেতেদায়ি মাদরাসা শিক্ষক সমিতি।

সরকারের পক্ষ থেকে ইতিবাচক সাড়া না পেয়ে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান ধর্মঘটের ৯ম দিন মঙ্গলবার (জানুয়ারি ০৯) এ ঘোষণা দেয় সংগঠনটি। ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে উপস্থিত শিক্ষকরা দুই হাত তুলে সমর্থন জানান।

এ সময় সংগঠনের সভাপতি কাজী রুহুল আমিন চৌধুরী, মহাসচিব মোখলেছুর রহমান, সিনিয়র-সহসভাপতি নজরুল ইসলাম হিরনসহ নন এমপিওভুক্ত মাদ্রাসা শিক্ষকরা উপস্থিত ছিলেন।

সভাপতি কাজী রুহুল আমীন চৌধুরী বলেন, ‘আমরা আট দিন ধরে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছি। কিন্তু সরকাররের পক্ষ থেকে কোনো সাড়া পাইনি। তাই আমরণ অনশন শুরু করেছি। আমাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনশন চলবে। অনশনে কারো জীবনের ক্ষতি হলে সে দায় ভার সরকারকেই নিতে হবে। জাতীয়করণের ঘোষণা না আসা পর্যন্ত আমরা এখান থেকে নড়ব না। সারা দেশে ১০ হাজার মাদরাসা রয়েছে। এতে ৫০ হাজারের বেশি শিক্ষক শিক্ষাদান করছেন। কিন্তু আমরা কোনো বেতন পাই না।’

শিক্ষক নেতারা জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৬ হাজার ১৯৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে জাতীয়করণ করেছেন। তারা আশা করেন প্রধানমন্ত্রী তাদের দাবিও মেনে নেবেন।

আন্দোলনরত শিক্ষকরা জানান, একই পরিপত্রে ১৯৯৪ সালে বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা শিক্ষকদের বেতন নির্ধারণ করা হয় ৫০০ টাকা। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী পঞ্চম শ্রেণির কার্যক্রম একই হলেও ২০১৩ সালের ৯ জানুয়ারি ২৬ হাজার ১৯৩টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করে সরকার। এসব বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের প্রতি মাসে ২২ থেকে ৩০ হাজার টাকা বেতন হলেও ১ হাজার ৫১৯টি স্বতন্ত্র্ ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকরা সরকারের কাছ থেকে কোনো বেতন পান না।

জাতীয়করণের দাবিতে চলতি বছরের ১ জানুয়ারি (সোমবার) থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন শুরু করে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষকরা।

অনশনের আগ পর্যন্ত আট দিনের অবস্থান কর্মসূচিতে প্রচণ্ড শীতের কারণে অন্তত ১০ জন অসুস্থ হয় পড়ে।