ইসরাইলের রাষ্ট্রপ্রধান আসছে এটা লজ্জাজনক ও বেদনার! : মন্তব্য ভারতীয় মুসলিম মন্ত্রীর

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট 


ইহুদিবাদী ইসরাইলকে মুসলিমদের ‘চিরশত্রু’ বলে অভিহিত করেছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ প্রধান ও রাজ্যের গ্রন্থাগার ও জনশিক্ষা দফতরের মন্ত্রী মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী।

তিনি বলেন, আরব দেশসমূহ ও ইসরাইলের সঙ্গে সখ্যতায় ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার দ্বিমুখী নীতি অবলম্বন করছে।

আজ (রোববার) থেকে ইহুদিবাদী ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর ৬ দিনের ভারত সফর করেছেন। তার ভারত সফরের বিরোধিতা করেছে বিভিন্ন মুসলিম সংগঠন। নেতানিয়াহু আজ দিল্লিতে পৌঁছালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি প্রটোকল ভেঙে বিমানবন্দরে উপস্থিত হয়ে তাকে আলিঙ্গন করে স্বাগত জানান।

পশ্চিমবঙ্গের জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ প্রধান মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী আজ (রোববার) বলেন, ‘ইসরাইলের রাষ্ট্রপ্রধান (প্রধানমন্ত্রী) ভারত সফরে এসে দাপাদাপি করুক আমরা তা চাই না। কেন্দ্রীয় সরকার কীভাবে জানি না ভারতের মতো ঐতিহ্যসম্পন্ন দেশ ওদের কাছে হাঁটু গেঁড়ে আত্মসমর্পণ করার পথ ধরেছে। এটা মেনে নেয়া যায় না।’

তিনি বলেন, ‘যে অত্যাচার ইসরাইল করেছে, (বাইতুল মুকাদ্দাসকে রাজধানী ইস্যুতে) ১২৮ ভোটে ট্রাম্প পরাজিত, দুনিয়ার মানুষ তাকে (ইসরাইলকে) তিরস্কার করেছে; ভারত সরকারের তা ভাবা উচিত। কেন্দ্রীয় সরকার দ্বিমুখী নীতিতে খেলতে চাচ্ছে। আরবরাও সন্তুষ্ট থাকবে, ইসরাইলও সন্তুষ্ট থাকবে এমন নীতি নিয়েছে। জওহরলাল নেহেরুজীর (ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী) আমল থেকে প্রাচীন যে ঐতিহ্য তা ভারত রক্ষা করতে চায় কী না তা সরকারকে স্পষ্ট করে জানানো উচিত।’

নেতানিয়াহুর ভারত সফর প্রসঙ্গে মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘আমরা খুশি নই। আমাদের সাফ কথা- আমরা ইসরাইলকে বিশ্বাস করি না, মুসলিমদের চিরশত্রু ইসরাইল।’

তিনি বলেন, ‘ইসরাইল এই মুহূর্তে পৃথিবীর মানুষের শান্তি কেড়ে নিয়েছে। তারা জাতিসংঘের মতো বৃহৎ প্রতিষ্ঠানকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে জোর-জুলুম করে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছে। ওই অন্যায় কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। মুসলিম জাহানের শত্রু হল ইসরাইল। সেদেশের রাষ্ট্রপ্রধান (প্রধানমন্ত্রী) আসছে ভারতে কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকারকে ভাবতে হবে তারা কী চায়। তারা আরব জাহানের সঙ্গে বন্ধুত্ব করতে চায়, না ইসরাইলের সঙ্গে বন্ধুত্ব চায়? তারা সাপের মুখে চুমু খাবে এবং ব্যাঙের মুখেও চুমু খাবে, তা হয় না। তাছাড়া জাতিসংঘে ট্রাম্পকে যেভাবে পরাজিত হতে হয়েছে, ইসরাইলের মুখ পুড়েছে। সেই মুখপোড়া ইসরাইলের রাষ্ট্রপ্রধান আসছে এটা লজ্জা! দুঃখের ও বেদনার!’

মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘আমরা কোনোভাবেই ইসরাইলকে বিশ্বাস করি না। আমি মনে করি ইসরাইল মুসলিমদের জাতশত্রু! শত্রুকে শত্রু ভাবা ভালো, বন্ধু ভাবা ঠিক নয়। ভারতের মতো বৃহৎ দেশ, ১৩০ কোটি প্রায় জনসংখ্যা অধ্যুষিত দেশ ভারত কিন্তু ইসরাইলের মতো ছোট একটা দেশের সঙ্গে হাঁটু গেঁড়ে বন্ধুত্ব করছে। এতে ভারতের পরম্পরা কতটুকু রক্ষা হবে, না হবে তা ভবিষ্যৎই বলবে। অতীতে জওহরলাল নেহরু যে অবস্থান নিয়েছিলেন, ভারত সেই অবস্থানে দাঁড়িয়ে থাকুক, এটাই আমরা চাই।’

মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘ওরা কত মানুষকে হত্যা করেছে, কত শিশুকে হত্যা করেছে, কত নারীর সতীত্ব নষ্ট করেছে, বিনা দোষে কত মানুষকে কারাগারে নিক্ষেপ করেছে। বায়তুল মুকাদ্দাস মুসলিমদের, সেখানেও নামাজ পড়া নিয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করে রেখেছে। সময় হলে খোলে নয়তো খোলে না।’

সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘ভারতের সাবেক প্রেসিডেন্ট প্রণব মুখোপাধ্যায় ইসরাইল সফরের সময় বায়তুল মুকাদ্দাসে জেরুজালেমে যেতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তাকেও ইসরাইল বিশ্বাস করেনি, ওকে সেখানে যেতে দেয়নি! ওরা অহংকার ও অত্যাচারিতায় পরিপূর্ণ। এরকম অভিশপ্ত দেশ এলে আমাদের ক্ষতি হবে!’

পার্সটুডে