বিএনপির কাউন্সিল ‘বাধাগ্রস্ত’ করতেই খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা: আব্দুল্লাহ আল নোমান

আবদুল্লাহ আল নোমান (1)আসন্ন কাউন্সিল ‘বাধাগ্রস্ত’ করতেই খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ‘ষড়যন্ত্রমূলক’ মামলা দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি যাতে সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী হতে না পারে সেজন্য ওই প্রক্রিয়া (কাউন্সিল) বাধাগ্রস্ত করতে সরকার ষড়যন্ত্র করে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দিচ্ছে।’

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়েরের বিরুদ্ধে বুধবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে ভাসানী ভবনে আয়োজিত এক প্রতিবাদ সভায় এই অভিযোগ করেন তিনি।

ঢাকা মহানগর কৃষক দল এই প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে।

নোমান অভিযোগ করেন, ‘বিএনপির কাউন্সিল ঘিরে আরেকটি চক্রান্ত শুরু হয়েছে। এর মাধ্যমে তৃণমূল থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত দলকে শক্তিশালী করার প্রক্রিয়া হচ্ছে। কিন্তু সরকার চায় বিএনপির কাউন্সিল যাতে সফল না হয় এবং সাংগঠকিভাবে শক্তিশালী না হয়।’

তিনি বলেন, ‘সেজন্য বিএনপিনেত্রীকে হয়রানি করতে এবং মানসিকভাবে ব্যস্ত রাখতে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দেয়া হয়েছে। যাতে কাউন্সিল সুষ্ঠুভাবে করা সম্ভব না হয়। কিন্তু বিএনপির কাউন্সিল যথাসময়েই হবে এবং সেই কাইন্সিলের মাধ্যমে নতুন-পুরাতন মিলিয়ে একটি কমিটি হবে। প্রয়োজনে গঠনতন্ত্র সংশোধন হবে। এর মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব গড়ে উঠবে। সেই নেতৃত্ব অগ্রবাহিনী হিসেবে আন্দোলন-সংগ্রামের মাধ্যমে এই সরকারের পরাজয়কে ত্বরান্বিত করবে।’

বিএনপি চেয়ারপারসনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলাকে রাজনৈতিক ও মিথ্যা বলে অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘এই ষড়যন্ত্রমূলক মামলা টিকবে না। শেষ পর্যন্ত এটি মিথ্যা প্রমাণিত হবে এবং জয় জনগণেরই হবে। কারণ মিথ্যা কখনো সত্যের কাছে জয়লাভ করেনি।’

তিনি বলেন, ‘বিরোধী রাজনৈতিক দল যখন কোনো সত্য কথা বলে এবং সেই কথা আলোচিত বিষয় হয়ে দাঁড়ায়, তখন মামলা দিয়ে সরকার সেই বিষয়টি শেষ করতে চায়। তবে এভাবে মামলা করে শেষ রক্ষা হবে না।’

সরকার উন্নয়নের কথা বলে গণতন্ত্রকে নির্বাসিত করছে- এমন দাবি করে নোমান বলেন, ‘গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করে অর্থনৈতিক মুক্তি পেতে একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিল। এর চেতনাই ছিল গণতন্ত্র। গণতন্ত্র ছাড়া উন্নয়ন সম্ভব নয়। যারা গণতন্ত্র রাখে না তারা কখনো টিকে থাকেনি। আইয়ুব খান, এরশাদ টিকে থাকতে পারেনি।’

তত্ত্ববধায়ক সরকার ব্যবস্থা না হলেও নির্বাচনকালীন সময়ে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের প্রক্রিয়া স্থির করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আহ্বান জানান বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু। প্রধানমন্ত্রী তার পদ থেকে পদত্যাগ করে একটি নির্বাচন দিলে সেই নির্বাচন সুষ্ঠু হবে বলেও মনে করেন তিনি।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি এ্যাডভোকেট নাসির হায়দারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন- বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, কৃষক দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তকদির হোসেন জসিম প্রমুখ।