‘শান্তি, ইনসাফ ও অধিকার ফিরে পেতে ইসলামী আন্দোলনের পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে’

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


ফাইল ছবি

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ ফয়জুল করীম বলেছেন, বর্তমানে সমাজের রন্দ্রে রন্দ্রে অনৈসলামীকরণ প্রক্রিয়া চলছে। সমাজ ব্যবস্থা দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হচ্ছে। সর্বত্র দুর্নীতির করালগ্রাসে জাতি নিমজ্জিত। দুর্নীতি, মাদকাসক্ত ও বিকারগ্রস্ত লোক দ্বারা সমাজ ও রাষ্ট্রে শান্তির আশা করা যায় না। আদর্শবান ও ন্যায়পরায়ন শাসক ছাড়া এক নাম্বার রাষ্ট্র তথা আদর্শ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা সম্ভব নয়। প্রচলিত সমাজ ব্যবস্থা জনগণের শান্তি ও অধিকার প্রতিষ্ঠায় সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। মানুষের তৈরি শাসন ব্যবস্থার অসারতা ক্রমেই ফুটে উঠছে। ফলে মানুষ অধিকার বঞ্চিত হয়ে হাহাকার করছে। দেশের সর্বত্র অশান্তির আগুন জ্বলছে। মানুষ শান্তির আশায় দিকবিদিক ছুটছে। এমতাবস্থায় সমাজ ও রাষ্ট্রে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হলে সকলকে ইসলামের সুমহান আদর্শের পতাকাতলে সমবেত হতে হবে। স্বাধীনতার পর থেকে শাসকগোষ্ঠী জনগণকে বার বার ধোকা দিয়ে কখনো নতুন বাংলা, কখনো সোনার বাংলা, কখনো সবুজ বাংলার কথা বলে এখন ডিজিটাল বাংলার কথা বলছে। এতে দিন দিন অশান্তি আরো বেড়ে চলছে। শান্তি, ইনসাফ ও অধিকার ফিরে পেতে ইসলামী আন্দোলনের পতাকাতলে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। কেননা ইসলাম ছাড়া মানবতার মুক্তি সম্ভব নয়।

আজ বিকেলে চরমোনাই নিজ এলাকায় দাওয়াতী অভিযানের সময় তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় এলাকার গণ্যমান্য লোকজন এবং চরমোনাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুফতী এছহাক মুহা. আবুল খায়ের উপস্থিথ ছিলেন।

মুফতী সৈয়দ ফয়জুল করীম বলেন, দাওয়াত দিতে হবে আল্লাহর দিকে। কোন মানবগড়া মতবাদের দিকে দাওয়াত দেয়া যাবে না। দাওয়াত দিতে আপনজনদেরকে আগে, এরপর অন্যান্যদের। এভাবে সমাজের সকল মানুষকে আল্লাহ ও রাসূল সা. এর দাওয়াত দিয়ে পরিশুদ্ধ সমাজ গঠনে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে। প্রচলিত শাসন ব্যবস্থার অসারতা তুলে ধরে এবং ইসলামী শাসনের অনিবার্যতা প্রমাণ করে দেশবাসীকে ইসলামী আন্দোলনে সম্পৃক্তকরণের লক্ষ্যে দাওয়াত দিতে হবে।