মাজারপূজারিদের হামলায় নিহত মাওলানা মুজ্জামিলের জানাজা লাখো মুসল্লীর উপস্থিতিতে সম্পন্ন

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | জৈন্তাপুর থেকে বিশেষ সংবাদতাদা শাহিদ হাতিমী


সিলেটের জৈন্তাপুরে ভন্ড মাজারপূজারিদের অতর্কিত হামলায় নিহত মাওলানা মোহাম্মদ মুজ্জাম্মিল হকের জানাজা সম্পন্ন। জানাজায় অংশ নেন সিলেট বিভাগের বরেণ্য উলামা মাশায়েখ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ প্রায় লাখো মুসল্লি। নামাজে জানাজায় ইমামতি করেন শায়খ মাওলানা ইউসুফ।

জানাজা পুর্ব সমাবেশে শায়খুল হাদীস মাওলানা ইউসুফ শ্যামপুরী বলেন “একটি ওয়াজ মাহফিলে আমবাড়ী আসামপাড়া এলাকার স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আমাদেরকে দাওয়াত দেন। যেখানে মাজারপূজারি-আটরশীরা দিন তারিখ ঠিক করে ওয়াজ করে! সেখানেই ওয়াজ শুরু করলো। আমাদের পক্ষের মাওলানা আব্দুস সালাম সাহেব তাঁর ক’জন ছাত্রসহ স্টেইজে বসা। তখন ওয়াজে কুরআনের মনগড়া অর্থ, ব্যাখ্যা শুরু করতে লাগলেন মাজারপূজারি বক্তা! তখনই আমাদের মাওলানা সাহেব উনার ভুল ধরে শুধরাতে চেষ্টা করলেন। কিন্তু কী শুধরাবেন, মাজারপূজারি বক্তা বলে ওঠলেন আপনি কুরআনের কী অর্থ জানেন!? সালাম সাহেব বললেন এটা আমার এলাকা, কেউ ভুল কিছু ব্যখ্যা করলে এটা নিয়ে আমি কথা বলবো না তো কে বলবে ভাই? এই শুরু। তারপর উচ্চবাক্য। হুজুরের সাথী, উপস্থিত কওমি ছাত্রদের মারপিট, হুজুরকে মারধর। পরিস্থিতি অনিয়ন্ত্রিত। সেখানেই শাহীদ করা হয় মুজ্জাম্মিলকে।”

তিনি আবেগাপ্লুত হয়ে বলেন, ”আমি আমার ছাত্রের উচিত বিচার চাই। খুনিদের দৃষ্ঠান্তমুলক শাস্তি চাই।”

নিহত মুজাম্মিলের গ্রামের বাড়ি সিলেট জেলার গোয়াইনঘাট উপজেলার তোয়াকুল ইউনিয়নে। বয়স ১৮ কিংবা ২০হবে। এ ঘটনায় অসংখ্য ছাত্র-শিক্ষক আহত হোন।

জানাজায় উপস্থিত ছিলেন মাওলান আলিম উদ্দীন দূর্লভপুরী, মাওলান শায়খ জিয়া উদ্দীন, সাবেক এমপি মাওলানা শাহীনূর পাশা চৌধুরী, মাওলান মিহিউল ইসলাম বুরহান, মাওলান আব্দুল বসির, মাওলানা খলিলুর রহমান, শায়খুল হাদিস আতাউর রহমান, মাওলানা মশতাক আহমদ খান, মাওলানা হেলাল আহমদ, উপজেলা চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন।

জানাজার পূর্বে কওমী আলেমদের বৈঠক দুই দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আগামীকাল জৈন্তা সদরে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ। খতমে কুরআন। স্থানীয় সলল হাটবাজারে বিক্ষোভ। এর মধ্যে খুনিরা গ্রেফতার করা না হলে সমাবেশ থেকে কঠোর আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে বলেও জানানো হয়। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এখনো এলাকায় উত্তপ্ততা, ক্ষোভ, আটরশী বেআতীদের প্রতি ঘৃণা বিরাজ করছে।