গ্রেফতারের ১০ মাস পর মুক্ত আইনজীবী শাকিলা

শাকিলা ফারজানাজঙ্গি অর্থায়নের অভিযোগে গ্রেফতারের ১০ মাস পর জামিনে মুক্তি পেয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার শাকিলা ফারজানা।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টায় তাকে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি দেয়া হয়।

শহীদ হামজা ব্রিগেড নামের একটি জঙ্গি সংগঠনকে অস্ত্র কেনায় এক কোটি ৮ লাখ টাকা দেয়ার অভিযোগে ২০১৫ সালের ১৮ অগাস্ট রাতে ধানমন্ডি থেকে দুই আইনজীবী হাসানুজ্জামান লিটন ও মাহফুজ চৌধুরী বাপনসহ বিএনপি নেতা সৈয়দ ওয়াহিদুল আলমের মেয়ে শাকিলাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব।

এর মধ্যে লিটন সুপ্রিম কোর্টে ও মাহফুজ চৌধুরী বাপন ঢাকা জজ কোর্টে কর্মরত।

পরে বাঁশখালী ও হাটহাজারী থানার সন্ত্রাসবিরোধী আইনের দুটি মামলায় তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়। শাকিলার আইনজীবী অ্যাডভোকেট আব্দুস সাত্তার জানান, দুই মামলায় গত বছরের ২৮ নভেম্বর বিচারিক আদালতে শাকিলার জামিন নামঞ্জুর হয়। ১২ জানুয়ারি হাইকোর্টে জামিন আবেদন করা হলে পরদিন প্রাথমিক শুনানি নিয়ে আদালত রুল দেয়। দুই মামলায় শাকিলা ফারজানাকে কেন জামিন দেওয়া হবে না তা জানতে চাওয়া হয় রুলে। দুই সপ্তাহের মধ্যে বিবাদীদের এর জবাব দিতে বলা হয়।

ওই রুলের ওপর চলতি বছরের ১৮ ফেব্রুয়ারি শুনানি শেষে আদালত ২২ ফেব্রুয়ারি আদেশের দিন ধার্য রাখেন। ধার্য দিনে শাকিলাকে জামিন দেন আদালত। এর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ আপিল বিভাগে লিভ টু আপিল করে।

৫ জানুয়ারি আপিল বিভাগে লিভ টু আপিলের শুনানি হয়। ৬ জুন আপিল বিভাগ লিভ টু আপিল খারিজ করে শাকিলার জামিন বহালের আদেশ দেন।

সন্ত্রাস দমন আইনে হাটহাজারী থানার মামলায় আইনজীবী লিটন ও বাপন গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর জামিন পান। এর আগে বাঁশখালী থানার মামলায়ও জামিন পান ওই দুই আইনজীবী। ১৫ ডিসেম্বর তারা জামিনে মুক্তি পান।