মেয়ে উত্যক্তের ঘটনায় ঢাবি ও ঢাকা কলেজ শিক্ষার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষ

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহনেওয়াজ হোস্টেলের সামনে মেয়ে উত্যক্তের ঘটনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ঢাবির এক শিক্ষার্থী এবং ঢাকা কলেজের দুই শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন। আহতদের ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাত ১০ টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহনেওয়াজ হোস্টেলের সামনে এই ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের ২০১৪-২০১৫ সেশনের ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থী শাহাদাত। তার মাথায় ৪টি সেলাই, ঢাকা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শামীম। তার মাথায় ৭টি সেলাই। আবির নামে আরেকজন শিক্ষার্থী ও আহত হন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা যায়, ঢাবি শাহনেওয়াজ হোস্টেলের সামনে বিজয় কর্ণার রেস্টুরেন্ট ঢাকা কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থী আড্ডা দেয়। এই সময় তারা কয়েকজন মেয়েকে নিয়ে কমেন্ট করলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত ঢাবি চারুকলা বিভাগের হিস্টরি অব আর্ট এর শিক্ষার্থী শাহাদাতের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এই সময় শাহাদাতকে ঢাকা কলেজের কয়েকজন মারধর করে। এতে তার মাথা ফেটে যায়। ঘটনাস্থলে পাশে থাকা শাহনেওয়াজ হোস্টেলের অন্য শিক্ষার্থীরা এসে ঢাকা কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থীকে মারধর করে। এতে ঢাকা কলেজের ইতিহাস বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শামীমের মাথা ফেটে যায়। আবির নামে আরেক শিক্ষার্থী ও আহত হয়। পরে ঢাকা কলেজের অন্য শিক্ষার্থীরা, দেশিয় অস্ত্র নিয়ে শাহনেওয়াজ হোস্টেলের সামনে অবস্থান গ্রহন করলে উত্তেজনা বিরাজ করে ওই এলাকায়। পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

আহত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শাহাদাত জানান, ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা এসে আমাদের হোস্টলের সামনে মেয়েদের বাজে কমেন্ট করেছে। এটা আমার ভালো লাগেনি। তাই তাদের নিষেধ করলে তারা আমাদের মারধর করে মাথা ফাটিয়ে দেয়।

প্রত্যক্ষদর্শী ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী ইমরান জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অকারণে আমার বন্ধুদের মারধর করে। হয়তো আমরা ওইখানে আড্ডা দিয়েছি তাদের এটা ভালো লাগেনি।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রাব্বানি বলেন, দুই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ঝামেলা হয়েছিলো। আমরা প্রক্টরিয়াল টিম পাঠিয়েছি। পরিস্থিতি এখন শান্ত।