হজ্বে যেতে চাইলে নিবন্ধন করুন এখনই

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |  ডেস্ক রিপোর্ট 


জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ২১ অাগস্ট পবিত্র হজ্ব অনুষ্ঠিত হতে পারে। যাঁরা ইতিমধ্যেই প্রাক নিবন্ধন করেছেন এবার হজ্বে যেতে চান, তাঁদের এখনই প্রস্তুতি শুরু করা দরকার।

জানা গেছে এ বছর ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন সৌদি আরবে যেতে পারবেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৭ হাজার ১৯৮ জন, অন্যরা বেসরকারি ব্যবস্থাপনায়।

এবার কত টাকা লাগবে
সরকারি ব্যবস্থাপনায় দুটি হজ প্যাকেজ রয়েছে। একটি প্যাকেজে হজযাত্রীর খরচ হবে ৩ লাখ ৯৭ হাজার ৯২৯ টাকা, অন্যটিতে খরচ হবে ৩ লাখ ৩১ হাজার ৩৫৯ টাকা। এ ছাড়া কোরবানির জন্য প্রতিটি প্যাকেজে আরও খরচ হবে সাড়ে ১০ হাজার টাকা (৫০০ রিয়াল)।

হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) মহাসচিব এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম জানালেন, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় একাধিক প্যাকেজ রয়েছে। বেসরকারিভাবে সর্বনিম্ন খরচ নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ লাখ ৩২ হাজার ৮৬৮ টাকা।

পরামর্শ
* ভাষার ভিন্নতা, নতুন দেশ, নতুন পরিস্থিতির কারণে কিছুসংখ্যক হজযাত্রী সমস্যায় পড়ে থাকেন। কয়েকবার হজ পালন করেছেন, এমন কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, কিছুটা ধারণা থাকলে, সচেতন হলে অনেক সমস্যা দূর করা যায়। পাঠকের সুবিধার্থে তাঁদের কিছু পরামর্শ:

১. সব ধরনের খরচ সম্পর্কে ধারণা রাখা: টাকা কম-বেশির ভিত্তিতে নয়, প্যাকেজের সুবিধাদি দেখে, শুনে, বুঝে চুক্তি করবেন। বিমানভাড়া, বাসাভাড়া, হজ্বের সময় মিনায় তাঁবুতে বা আজিজিয়ায় থাকা কিংবা না–থাকা, ফিতরা ইত্যাদি আগে থেকে জেনে নিতে হবে।
২. হজ প্যাকেজ: হজ প্যাকেজ কত দিন, সৌদি আরবে অবস্থানের মেয়াদ কত দিন, কোথায় কত দিন অবস্থান এবং তা কীভাবে, বিস্তারিত জানতে হবে।
৩. মক্কা-মদিনায় বাসার অবস্থান: মক্কা-মদিনার বাসার ধরন এবং তা কাবা শরিফ থেকে কত দূরে, জেনে নেবেন।
৪. খাবার: সৌদি আরবে পৌঁছে তিন বেলা খাবার দেওয়া হবে কি না বা বিকল্প ব্যবস্থা কী, তা জানতে হবে।
৫. কোরবানি: প্রতারণা এড়াতে ইসলামি উন্নয়ন ব্যাংক বা আইডিবির কুপন কিনে দেওয়া ভালো।
৬. মানসিক ও শারীরিক সক্ষমতা: হজ্বের সফরে মানসিক ও শারীরিক সক্ষমতা জরুরি।
৭. ফিতরা: ফিতরা বা স্থানান্তর (অর্থাৎ
মক্কার বাসা কাবা শরিফের কাছে-দূরে একাধিকবার বদল করাকে ফিতরা বলে) আছে কি না। হজ্বের আগে না পরে ফিতরা হবে, তা জানতে হবে।
৮. হজ্বের দিনগুলো: মোয়াল্লেম কী কী সুবিধা দেবেন, বিস্তারিত জেনে নেবেন।
৯. হজ্বের নিয়মকানুন জানা: প্রয়োজনীয় বই-পুস্তক, হজ গাইড সংগ্রহ করে পড়ুন।
১০. ঘোষিত হজ প্যাকেজের চেয়ে কম টাকায় হজ্বে গেলে প্রতারিত হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

* হজযাত্রীদের প্রাক্‌-নিবন্ধন, নিবন্ধন এবং সর্বশেষ নির্দেশনা, সংবাদ ও প্রয়োজনীয় ফরম ডাউনলোড করা যাবে www.hajj.gov.bd ঠিকানায়। তথ্যসেবাকেন্দ্র ০৯৬০২৬৬৬৭০৭
* যাত্রার শুরুতে ভালো সফরসঙ্গী খুঁজে নেবেন, যাতে নামাজ আদায় করতে ও চলাফেরায় একে অন্যের সাহায্য নিতে পারেন।

প্রাক্-নিবন্ধন বাতিল করতে চ​াইলে
প্রাক্-নিবন্ধনের জন্য অগ্রিম টাকা প্রদান করে যদি কেউ হজ্বে না যান, তাহলে প্রসেস ফি ৩ হাজার টাকা বাদ দিয়ে বাকি টাকা ফেরত পাওয়া যাবে। টাকা জমা দেওয়া ব্যাংকের মাধ্যমে অনলাইনে ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ে আবেদন করতে হবে।

পাসপোর্ট বানাবেন যেখানে
হজযাত্রীরা নিজ নিজ জেলা অনুযায়ী পাসপোর্ট কার্যালয় থেকে ওই জেলায় বসবাসকারীরা এমআর পাসপোর্ট বানাতে পারবেন। আবেদনপত্রসহ আরও তথ্য www.passport.gov.bd ঠিকানায় পাওয়া যাবে।

এবার হজ প্যাকেজে যুক্ত হয়েছে

* যেসব ব্যক্তি ২০১৫, ২০১৬ ও ২০১৭ সালে হজ করছেন, ২০১৮ সনে পুনরায় হজ করলে ২,১০০ সৌদি রিয়াল পরিশোধ করতে হবে।
* যদি কেউ আলাদা ফ্লাইটে সফর করতে চান তাহলে অবশ্যই আলাদাভাবে নিবন্ধন করবেন।
* নিবন্ধন করে হজযাত্রা বাতিল করতে চাইলে লিখিতভাবে হজ অফিস পরিচালক বরাবর আবেদন করতে হবে ।
* এমআরপি পাসপোর্ট সংগ্রহ করুন ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ পর্যন্ত মেয়াদ থাকতে হবে । পাসপোর্টের তথ্যপাতায় স্ট্যাপলার পিন বা ছিদ্র না করার পরামর্শ ।
* প্রাকনিবন্ধিত হজযাত্রী নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্যাকেজের অবশিস্ট অর্থ জমা দেবেন।
* এজেন্সি ও হজযাত্রীর মধ্যে চুক্তির (ফরম-১৫) কপি হজযাত্রী সংরক্ষণ করবেন।
* ট্রলিব্যাগ হজযাত্রীকে নিজ দায়িত্ব ক্রয় করতে হবে।
* হজযাত্রীর অভিযোগ থাকলে (ফরম ১৭ক বা ১৭খ) জানাতে পারবেন।
* প্রত্যেক হজযাত্রীকে তাঁর পাসপোর্টের সঙ্গে মক্কা ও মদিনার ভাড়াকৃত বাড়ি বা হোটেলের স্টিকার সংযুক্ত করতে হবে।
প্রাক-নিবন্ধন, নিবন্ধন, ভিসা বা হজ ব্যবস্থাপনায় কোনো মিথ্যা তথ্য প্রদান করলে তার
দায়-দায়িত্ব হজযাত্রী এবং হজ এজেন্সির ।
* বিস্তারিত হজ প্যাকেজ www.hajj.gov.bd ঠিকানায়

সূত্র : প্রথমআলো