‘নৌকায় ভোট চাওয়া আমার রাজনৈতিক অধিকার’, বললেন শেখ হাসিনা

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ফাইল ছবি)

আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, “নৌকা প্রতীকে ভোট চাওয়া আমার রাজনৈতিক অধিকার। আমি একটি রাজনৈতিক দলের সভানেত্রী। আমি ভোট চাইতেই পারি। একটা দলের সভাপতি হিসেবে এটা আমার অধিকার।”

আজ শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে প্রধানমন্ত্রী তার বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, “আগামী নির্বাচন হবে। অবশ্যই আমাদের সকলকে জনগণের কাছে যেতে হবে। নৌকায় ভোট চাইতে হবে। সকলকে বলতে হবে এবং বোঝাতে হবে। একমাত্র নৌকায় ভোট দিলেই এদেশের মানুষ উন্নতি পায়।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “তারা ক্ষমতায় আসে ভোগবিলাস করতে, অর্থসম্পদ বানাতে আর মানুষ খুন করতে। ওই বিএনপি-জামায়াত জোট মানুষ পুড়িয়ে পুড়িয়ে মারতে পারে। মানুষের ক্ষতি করতে পারে। মানুষকে অত্যাচার করাই তাদের কাজ। আর আমাদের কাজ হচ্ছে, আমরা দেশকে শান্তিপূর্ণ করে প্রতিষ্ঠা করতে চাই। মানুষকে সেবা করাই আমাদের কর্তব্য। এই সেবা করার সুযোগটাই আমরা চাই।”

তিনি আরও বলেন, “বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি, এগিয়ে নিয়ে যাবো। আজকে আমরা উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে উন্নীত হয়েছি। একদিন আমরা উন্নত দেশ হিসেবে স্বীকৃতি পাবো।”

এদিকে, বৈঠকের শুরুতে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হওয়ায় দলের পক্ষ থেকে শেখ হাসিনাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের নেতারা। এ সময় আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের তার হাতে ফুলের তোড়া তুলে দেন।

কার্যনির্বাহী এই সভায় দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদের মধ্যে—মতিয়া চৌধুরী, কাজী জাফরউল্লাহ, আ্যডভোকেট সাহারা খাতুন, সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, ফারুক খান, আব্দুর রাজ্জাক, পীযূষ কান্তি ভট্টাচার্য, মাহবুব উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমানসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন যায়গায় গিয়ে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতীক নৌকা মার্কায় ভোট চান শেখ হাসিনা। বিএনপিসহ কয়েকটি রাজনৈতিক দল বিষয়টি নিয়ে সমালোচনা করে। পাশাপাশি অভিযোগ করে, সরকারি খরচে নিজ দলের নির্বাচনী প্রচার চালাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। ওই সমালোচনার জবাবেই আজ এসব কথা বললেন শেখ হাসিনা।