সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আ.লীগ ৫০ টির বেশী আসন পাবে না : কর্ণেল অলি

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


সরকারী এমন কি বিরোধী দলের বাংলাদেশের কেউ শান্তিতে নাই বলে মন্তব্য করে এলডিপি সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী কর্ণেল (অব.) অলি আহমেদ বীরবিক্রম বলেন, সকল দলের অংশ গহনে নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগ ৫০ টির বেশী আসন পাবে না।

তিনি বলেন, শুধু কালভার্ট, রাস্তা আর সেতুর নামে উন্নয়ন করলেই জনগনের মনে স্থান করে নেয়া যায় না। জনগনের মৌলিক অধিকার, কথা বলার অধিকার, ভোটাধিকার কেড়ে নিয়ে উন্নয়ন করলেও জনগনের মনে জায়গা করে নেয়া যায় না। মুক্তি যুদ্ধের চেতনা গণতান্ত্রিক অধিকার জনগনকে ফিরিয়ে দিতে হবে। জোর করে ক্ষমতা যত বেশী দির্ঘস্থায়ী করবেন পতন তত বেশী লঅঞ্চনার হবে।

মঙ্গলবার বিকালে রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনিস্টিটিউশন মিলনায়তনে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি ঢাকা মহানগর সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, দেশ আজ সংকটকালিন সময় অতিক্রম করছে। এই সংকট মোকাবেলা জাতীয় ঐক্যের কোন বিকল্প নাই। অতিতের সকল ভুল-ত্রুটি ভুলে গিয়ে জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। মনে রাখতে হবে জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা না হলে আমাদের জন্য খুই দু:সময় অপেক্ষা করছে।

তিনি আরো বলেন, একটি গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দলে চূড়ান্ত লক্ষ হচ্ছে নির্বাচন। এলডিপিও তার ব্যাতিক্রম নয়। দেশে প্রকৃত গণতন্ত্র ও ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করতে হলে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমেই একটি গ্রহনযোগ্য ও অংশগ্রহন মূলক নির্বাচন আদায় করতে হবে।

অলি আহমেদ সরকারের উদ্দেশ্যে বলেন, আ.লীগের মনে রাখতে হবে ক্ষমতা কারো জন্যই চিরস্থায়ী নয়। অবৈধভাবে ক্ষতা যত বেশী আকড়ে থাকবেন, পতন তত বেশী ভয়াবহ হবে। ইতিহাস এটাই প্রমান করে।

সৈয়দ মুহম্মদ ইবরাহিম বলেন, দেশ, জাতি, গণতন্ত্র ও ২০ দলের জন্য ক্রান্তিকাল চলছে। এই ক্রান্তিকালে জোটের অবিভাবককে দায়িত্বপূর্ণ আচরন করতে হবে। এলডিপি, কল্যাণ পার্টি, বাংলাদেশ ন্যাপ ২০১৪ সালের নির্বাচনের মাধ্যমে রাজনীতির পরিক্ষায় উত্তীর্ণ।

মহানগর উত্তরের আহ্বায়ক ইব্রাহিম মিয়ার সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন কল্যাণ পার্টি চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীক, এলডিপি মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, এনডিপি ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, এলডিপি’র আবদুল করিম আব্বাসী, আবু ইউসুফ খলিলুর রহমান, আবদুল গনি, ইঞ্জিনিয়ার কামাল মোস্তফা, যুগ্ম মহাসচিব তমিজউদ্দিন টিটু, উপদেষ্টা অধ্যাপিকা করিমা খাতুন, ড. আবু জাফর সিদ্দিকী, সৈয়দ ইবরাহিম রনক, এম.এ বাশার, অধ্যাপক আবদুস সালাম, অবাক হোসেন রনি প্রমুখ।