‘মসজিদ-মাদরাসার অস্তিত্ব না থাকলে বাংলাদেশে দ্বীন-ধর্ম টিকিয়ে রাখা অসম্ভব হয়ে দাঁড়াবে’

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


রামু খুনিয়াপালংস্থ ধোয়াপালং নয়াপাড়া মা-হাদ আল-ফারুক আল-ইসলামিয়া মাদরাসার ১৯ তম বার্ষিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (২ এপ্রিল) দিনব্যাপী এ সভায় প্রধান আলোচক ছিলেন জামিয়া ইসলামিয়া টেকনাফের সিনিয়র মুহাদ্দিস হাফেজ মাওলানা মুফতী রিদওয়ানুল কাদির।

প্রধান আলোচকের বয়ানে তিনি বলেন, মসজিদ-মাদরাসা হলো আল্লাহর জমিনে আল্লাহর দ্বীন রক্ষা করার অন্যতম রক্ষাকবচ। তিনি স্পেনের ইতিহাস উদাহরণ হিসেবে পেশ করে বলেন, যদি আমাদের বাংলাদেশে মসজিদ-মাদরাসার অস্তিত্ব না থাকে, তাহলে স্পেনের মতো আমাদের দেশেও দ্বীন-ধর্মকে টিকিয়ে রাখা অসম্ভব হয়ে দাঁড়াবে। তাই নিজেদের দ্বীন রক্ষার স্বার্থে হলেও মসজিদ-মাদরাসার হেফাজতের জন্য সকলকে আত্মনিয়োগ করার প্রতি জোর তাগিদ দেন তিনি

বার্ষিক সভায় বিশেষ আলোচক ছিলেন, রুমখাঁপালং ইসলামিয়া আলিম মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা আব্দুল্লাহ এম. এম সাহেব, ছাদিরকাটা মদীনাতুল উলুম মাদরাসার পরিচালক মাওলানা কারী আবু নাছের , ধোয়াপালং কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতীব মাওলানা খলিলুর রহমান , পাগলিরবিল জামে মসজিদের খতীব, মাওলানা আব্দুর রশিদ প্রমুখ।

বার্ষিক সভায় প্রধান বক্তা এ মাদরাসা থেকে হিফজ সমাপ্তকারী ৩ জন হাফেজে কুরআনকে দস্তারে ফজীলত প্রদান করেন।

এ মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন খুনিয়াপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মাবুদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন, খুনিয়াপালং ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য আলহাজ্ব নজির আহমদ , পাগলিরবিল তাজবীদুল কুরআন মাদরাসার পরিচালক মাওলানা নুর মুহাম্মদ, রামু লম্বরী পাড়া দারুল কুরআন নুরানী একাডেমীর পরিচালক লেখক হাফেজ মুহাম্মদ আবুল মঞ্জুর, গাজীপুর মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা ইলিয়াছ , মরিচ্যা পালং উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মাওলানা আব্দুল হামিদ , চেকপোস্ট আল হাসান মাদরাসার শিক্ষক মুহাম্মদ আলম, ছাত্রনেতা দিদারুল আলম প্রমুখ। সভায় সভাপতিত্ব করেন অত্র মাদরাসার সাবেক পরিচালক, আলহাজ মাওলানা নুর মুহাম্মদ শেখ। বার্ষিক সভার সার্বিক পরিচালনায় ছিলেন, অত্র মাদরাসার পরিচালক মাওলানা আব্দুল গফুর।