ইসলাম বিদ্বেষ: অস্ট্রিয়ায় হিজাব পরার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করার প্রস্তাব

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


অস্ট্রিয়ায় কম বয়সী মেয়েদের হিজাব পরার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করার প্রস্তাব করেছে দেশটির নতুন জোট সরকার।

অস্ট্রিয়ার শিক্ষা মন্ত্রী বলেছেন নতুন প্রস্তাবিত এই আইন সামনের গ্রীষ্মেই কার্যকর করা হবে এবং অস্ট্রিয়ার সংস্কৃতি থেকে ইসলামিক প্রভাব দূর করতে চাইছেন তাঁরা।

এদিকে, অস্ট্রিয়ার প্রধান মুসলিম দল বলছে এই পরিকল্পনা একেবারেই গঠনমূলক নয়।

এই সিদ্ধান্তের ফলে কি হবে তা এখনো ধারনা করা যাচ্ছে না। ধর্মীয় অনুশাসন অনুযায়ী বয়ো:সন্ধিকাল শুরু হলে মুসলিম মেয়েশিশুদের মাথায় স্কার্ফ পরতে হয়।

ভাইস চ্যান্সেলর হেইঞ্জ ক্রিশ্চিয়ান স্ট্রাখে এক ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন ইসলামিক রাজনীতি থেকে শিশুদের রক্ষার উদ্দেশ্যে এমন প্রস্তাব এনেছে সরকার।

একটি সংবাদ সম্মেলনে মি. কুর্টজ ও মি. স্ট্রাখে বলেন এনিয়ে স্কুলগুলোতে একটি সমস্যা তৈরী হচ্ছে। যদিও তাদের বক্তব্যের সমর্থনে তারা কোনো তথ্য-উপাত্ত প্রকাশ করেননি।

প্রস্তাবিত আইনের বিস্তারিত এখনো ঠিক হয়নি।

অস্ট্রিয়ায় এর আগের জোট সরকার প্রকাশ্যে নিকাব সহ মুখ ঢেকে রাখার বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল। তবে নারীদের হিজাব পড়ার ক্ষেত্রে কোনো বাধ্যবাধকতা ছিল না।

অস্ট্রিয়ার মুসলিম সম্প্রদায়ের নেতারা সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনায় আলোচনায় বসার তাগিদ দিয়েছেন।

গতবছর অস্ট্রিয়ার ভেতরে ইসলামভীতির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ার লক্ষ্যে প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার ভ্যান ডার বেলেন দেশের সব নারীকে মাথায় স্কার্ফ পড়ে একাত্মতা প্রকাশ করার অনুরোধ জানিয়েছিলেন।