জার্মানিতে হামলাকারী মুসলিম নয়, বলা হচ্ছে- ‘মানসিক বিকারগ্রস্ত’

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | মারজান হুসাইন চৌধুরী


এই গাড়িটি ব্যবহার করে হামলা চালানো হয়

জার্মানির উত্তর পশ্চিমাঞ্চলের মুনস্টার শহরে শনিবার রেস্তোরাঁর বাইরে বসে থাকা লোকজনের ওপর গাড়ি তুলে দেওয়ার ঘটনায় চারজন নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় ৩০ জন আহত হয়েছেন। এদের মধ্য অন্তত ছয়জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

হামলাকারী ৪৮ বছর বয়স্ক ইয়েনস মুসলিম নয়। পুলিশ বলছে, “এটি কোনো সন্ত্রাসী হামলা নয়। হামলাকারী ইয়েনস একজন বিকারগ্রস্ত ব্যক্তি ছিলেন।”

পশ্চিমা বিশ্বে কোন হামলার ঘটনা ঘটার সাথে সাথেই মুসলিমদের ওপর দায় চাপানো হয়। বিশেষ করে হামলাকারী যদি মুসলিম হয় তাহলে ‘জঙ্গি’ ‘জিহাদী’ ‘সন্ত্রাসী’ উপাধি দেয়া হয়। কিন্তু যদি হামলাকারী মুসলিম না হয়, তাহলে তাকে ‘মানসিক বিকারগ্রস্ত’ বলা হয়ে থাকে।

৪৮ বছর বয়স্ক জার্মান নাগরিক ইয়েনস ধূসর রঙের ভক্স ওয়াগন কোম্পানির একটি ক্যাম্পিং (ছুটি কাটানোর) গাড়ি নিয়ে জনবহুল রেস্তোরাঁর বাইরে বসে থাকা লোকজনের ওপর দ্রুত গতিতে চালিয়ে দেন। ঘটনার পরপরই গাড়িচালক ইয়েনস পিস্তল দিয়ে গাড়ির ভেতরে বসেই আত্মহত্যা করেন।

পুলিশ সদস্যরা রয়েছেন সতর্কবস্থায়

ঘটনাস্থলের দুই কিলোমিটার দূরেই পুলিশ হামলাকারী ইয়েনস আরের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে বিস্ফোরক-জাতীয় সামগ্রী খুঁজে পায়।

ইয়েনস সায়ারল্যান্ড অঞ্চলে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে তিন লাখ মানুষ-অধ্যুষিত মুনস্টার শহরে বসবাস করতেন।

এদিকে, নর্থ রাইন ভেস্টফালেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হেবার্ট রয়েল বলেছেন, “এই হামলার ঘটনায় সন্ত্রাসবাদের কোনো সম্পর্ক নেই। সবখানে যেভাবে শরণার্থীদের কাজ বলে ধারণা পোষণ করা হচ্ছে, তাও সঠিক নয়। আজকের হামলার ঘটনাটি ঘটিয়েছেন জার্মানির একজন নাগরিক।”