সড়ক দুর্ঘটনার আহত মানবাধিকার বিশেষজ্ঞ রেজাউর রহমান লেনিন

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট 


মানবাধিকার বিশেষজ্ঞ, ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটির শিক্ষক রেজাউর রহমান লেনিন গত শুক্রবার রাত ১০ টায় শ্যামলীতে সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হয়ে এখন সংকটাপন্ন অবস্থায় নগরীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

তিনি ধানমণ্ডি থেকে অ্যাপ ভিত্তিক রাইড শেয়ারিং সার্ভিস ‘পাঠাও’ নিবন্ধিত একটি মোটরসাইকেলে চড়ে সে রাতে নিজ বাসায় ফিরছিলেন। ‘শ্যামলী গার্ডেন’ নামক এপার্টমেন্ট বিল্ডিং-এর সামনে, মূল সড়কের মাঝখানে অবস্থিত ম্যানহোল-এর খাদে মোটরসাইকেলের চাকা পড়ে যাওয়ায় চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলায় এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা সংগঠিত হয়। এতে রেজাউর রহমান লেনিন মাথায় প্রচণ্ড আঘাতপ্রাপ্ত হন এবং মোটরসাইকেল চালকেরও হাত ভেঙে যায়। গুরুতর আঘাতের ফলে তার মস্তিষ্কের অভ্যন্তরে ব্যাপক রক্তক্ষরণ হয়, যা পরিস্কার ও নিয়ন্ত্রণ করার জন্য গতকাল শনিবার দুপুরে ডাঃ রেজাউস সাত্তারের নেতৃত্বে স্কয়ার হাসপাতালে অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে। তিনি তখন থেকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রয়েছেন এবং এখনও তার অবস্থা শঙ্কামুক্ত নয় বলে চিকিৎসকগণ জানিয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা যায়, দুর্ঘটনার পরে আনুমানিক পনেরো মিনিট তিনি আহত অবস্থায় রাস্তার পাশে পড়ে ছিলেন। পরবর্তীতে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল অনুষদের ছাত্র মোঃ ইমরান তাকে আহত অবস্থায় নিকটস্থ ট্রমা সেন্টারে নিয়ে যান। ইমরান জানিয়েছেন ট্রমা সেন্টারের (হাসপাতাল) চিকিৎসকগণ তাকে সেখানে ২৫ মিনিট রাখলেও কোন চিকিৎসা দেননি; রেজাউর রহমান লেনিনের অবস্থা অত্যন্ত শঙ্কাজনক হয়ে পড়ায় তারা তাকে পার্শ্ববর্তী রিং রোডস্থ ঢাকা সেন্ট্রাল ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেন।

পরবর্তীতে সেন্ট্রাল হাসপাতাল থেকে রেজাউর রহমান লেনিনের স্ত্রী তাকে স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানকার জরুরী বিভাগে পৌছলে, তারা সিটি স্ক্যান পরীক্ষা করে আহতের মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হচ্ছে দেখে, তাকে নিউরোসার্জারি বিভাগের আইসিইউ’তে ভর্তি করে নেয়। মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হওয়ায় এবং রক্তচাপ কমে যাওয়ায় চিকিৎসকগণ অপারেশনের মাধ্যমে তার মাথার খুলির (স্কাল) একটি অংশ খুলে মস্তিষ্কের অভ্যন্তরে জমাটবাধা রক্ত পরিস্কার করে, রক্তক্ষরণ নিয়ন্ত্রণে এনেছেন।সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকগণ জানিয়েছেন, আগামী এক সপ্তাহ তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হবে এবং তার আগে কোন কিছুই নিশ্চিত হয়ে বলা যাবে না।

রেজাউর রহমান লেনিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ২০০৬-০৭ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। সীমান্ত হত্যা, অনলাইনে মতামত প্রকাশের স্বাধীনতা, নাগরিক অধিকার, তৈরি পোশাক খাতে শ্রমিকদের অধিকার, ধর্মীয় স্বাধীনতা এবং সম্প্রতি রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিয়ে তিনি ধারাবাহিক ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। পেশাগত জীবনে তিনি মানবাধিকার সংগঠন অধিকার, রামরু, আর্টিকেল নাইনটিন, হিউম্যান রাইটস ওয়াচ, আলজাজিরা টিভি সহ নানান জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থায় কাজ করেন।