‘ইমাম লাঞ্চিতকারীদের কঠোর শাস্তি দিতে ব্যর্থ হলে ঈমানদার জনতা রাজপথে নামতে বাধ্য হবে’

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ ও যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে মুহাম্মদ আবদুল গাফফার (৩০) নামে এক ইমামকে গাছের সাথে বেঁধে পিটিয়ে মাথা ন্যাড়া করার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ, ক্ষোভ তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

আজ এক বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় বলেন, মির্জাগঞ্জ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাসেল হাওলাদার সমাজের সবচেয়ে সম্মানী ব্যক্তি একজন ইমামকে এভাবে গাছে বেধে মারধর করে মাথা ন্যাড়া করার ঘটনা কোনমানেই মেনে নেয়া যায় না। ৯২ ভাগ মুসলমানের দেশে একজন ইমামকে লাঞ্জিত সহ্য করার অর্থই হলো সকল ইমামকে লাঞ্জিত করা। এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার না হলে দেশের সকল ইমাম রাজপথে প্রতিবাদে নেমে আসতে বাধ্য হবে। তারা অবিলম্বে ঘটনার নায়ক ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীদেরকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়ার আহ্বান জানান।

নেতৃদ্বয় আরও বলেন, এর আগেই বিভিন্ন মসজিদের ইমামদেরকে লাঞ্জিত করা হয়েছে। ক্ষমতাসীনদের হাতে মসজিদের ইমামরাও নিরাপদ নয়।