জামেয়া ইসলামিয়া বার্মিংহাম-এর ১২ তম খতমে বুখারী কনফারেন্স অনুষ্ঠিত

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


বৃটেনে বাংলাদেশিদের গর্বের প্রতিষ্ঠান জামেয়া ইসলামিয়া বার্মিংহাম-এর ১২ তম খতমে বুখারী কনফারেন্স ৬ মে রোববার ব্রিটেনের প্রবীণ আলেম ও জামেয়ার পৃষ্টপোষক শায়েখ মাওলানা আব্দুল আজিজের সভাপতিত্বে ও জামেয়ার প্রিন্সিপাল শায়খুল হাদীস মাওলানা রেজাউল হকের সার্বিক তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত হয়।

মহতী এই কনফারেন্স পরিচালনা করেন জামেয়ার শিক্ষা সচিব ও বৃটেনের মিডিয়া ব্যক্তিত্ব, মুহাদ্দীস মাওলানা ফয়জুল হক আব্দুল আজিজ।

কনফারেন্স প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউনাইটেড আরব আমিরাত থেকে আগত, ইসলামী চিন্তাবিদ, ডঃ শেখ ত্বকী উদ্দীন নদবী, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বৃটেনের বিশিষ্ট আলেম মুফতী শিব্বির আহমদ, দারুল উলুম বেরী মাদ্রাসার মুহাদ্দীস মাওলানা আব্দুর রহিম, মুফতী আব্দুস সামাদ, মাওলানা আব্দুল আউয়াল,শায়েখ মাওলানা হাফিজ ইমাদ উদ্দিন, মাওলানা লুকমান। এছাড়াও হাফিজ মাওলানা ইকবাল হোসাইন, হাফিজ মাওলানা সালেহ আহমদ, মাওলানা সালেহ আহমদ হামিদী, মুফতী ছালেহ আহমদ, মাওলানা নুরুল ইসলামসহ বৃটেনের শীর্ষ উলামার মাশায়েখগন বক্তব্য রাখেন।

খতমে বুখারীর দরস শুরু হওয়ার আগে প্রধান অতিথি হাদীস শাস্ত্রের উপর সবিস্তার বক্তব্য রাখেন। তিনি হাদীসের বিশুদ্ধ কিতাব বুখারী শরীফ ও এর রচয়িতা ইমাম আবু আব্দিল্লাহ মুহাম্মদ ইবনে ইসমাঈল বুখারী (রাহ.)এর বৈশিষ্ট্য বর্ণনার এক পর্যায়ে বলেন, ইমাম বুখারী (রাহ.) দীর্ঘ ১৬ বছর পর্যন্ত সিয়াম সাধনার মাধ্যমে ১,০৮০ জন উস্তাদ থেকে অর্জনকৃত ৬ লক্ষ হাদীস থেকে বাচাই করে ৭,২৭৫টি হাদীস সংকলন করেছেন। প্রত্যেক হাদীস লেখার পূর্বে গোসল করে দুই রাকাত নামায আদায় করে আল্লাহ্ তাআলার দরবারে এই দোয়া করতেন, হে আল্লাহ! হাদীস যদি ভুল হয়, তাহলে শুদ্ধতা অন্তরে ঢেলে দিন। রওজায়ে আক্বদাসের পাশে বসে ৩,৩৮৮টি বাব (অধ্যায়) নির্ধারণ করেছেন, তার এই মেহনত আর মোজাহেদার কারণে আল্লাহ পাক এই কিতাবকে এতো মকবুল করেছেন। তাই যারা এই কিতাবকে অধ্যায়ন করে পাগড়ি পড়েছেন তাদেরকেও এই পথ অনুসরণ করে চলতে হবে।

উপস্থিত ওলামায়ে কেরাম ” নবীন আলেমদের উদ্দেশ্যে তাদের বক্তব্যে বলেন, আপনার কুরআন হাদীস পড়ে দাওরায়ে হাদীস শেষ করেছেন, এখন আপনাদের দায়িত্ব এখলাসের সহিত দ্বীনি খেদমত করা এবং ইসলামের সঠিক বিষয় গুলিকে জাতীর সামনে তুলে ধরা, যাতে পথহারা মানুষ দ্বীনের সঠিক পথের সন্ধান পায়।

কনফারেন্সে জামেয়ার প্রতিষ্ঠা প্রিন্সিপাল শায়খুল হাদীস মাওলানা রেজাউল হক সংক্ষিপ্ত রিপোর্ট পেশ করেন এবং ভবিষ্যত পরিকল্পনা তুলে ধরে সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।

শেষে জামেয়ার পৃষ্টপোষক শায়েখ মাওলানা আব্দুল আজিজ উপস্থিত মেহমান ও শিক্ষকবৃন্দকে সাথে নিয়ে দাওরায়ে হাদিস ও হিফজ সমাপনকারী ছাত্র দের মাথায় পাগড়ি পরিয়ে দেন।