কুবির কোটা বিরোধী আন্দোলনকারীদের উপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ১৫

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি 


কোটা বিরোধী আন্দোলনকারী কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বাসে হামলা হয়েছে। ছাত্রলীগের এই হামলার ঘটনায় কুমিল্লা নগরীর পুলিশ লাইন এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

রবিবার বিকেলে সাড়ে ৫টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত দফায় দফায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস, রাবার বুলেট ও টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে। হামলায় ওসিসহ ১৫ জন আহত হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ছাত্ররা জানান, বিশ্বদ্যিালয়ের ৩টি ছাত্রবহনকারী বাস পুলিশ লাইনে কুমিল্লা সরকারি কলেজের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় ওই বাসগুলোর উপর হামলা করে কুমিল্লা মহানগর ও কুমিল্লা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তারা ছাত্রবহনকারী বিআরটিসির একটি বাস সম্পূর্ণ ভাংচুর করে। এসময় ওই তিনটি বাসে থাকা ছাত্ররা নেমে এসে হামলাকারীদের উপর পাল্টা হামলা করে।

ছাত্রলীগের কর্মীরা কুমিল্লা সরকারি কলেজে অবস্থান নিয়ে হামলা করে। তারা মুখোশ পরে ছাত্রদের উপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে ও লাঠি নিয়ে তাড়া করে। এ সময় কয়েকটি দোকান ভাংচুর করা হয়। নগরীর ওই এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে। দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র জাহিদুল ইসলাম বলেন, বিকাল ৫টায় বিশ্ববিদ্যালয় ছুটির পর তারা নগরীতে গাড়িযোগে প্রবেশ করছিলেন। এ সময় তারা অতর্কিত হামলার মুখে পড়ে।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের উপর এ হামলার বিচার চাইতে পুলিশের কাছে চাইতে গেলে পুলিশের সামনেই তাদের উপর আবারো হামলা হয়।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. এমরান কবির চৌধুরী জানান, ঘটনার বিষয়ে জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের সাথে কথা হয়েছে। কি কারণে ঘটনাটি ঘটেছে তা এখনো নিশ্চিত হতে পারিনি। সোমবার ঘটনার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জরুরি সভা আহবান করা হয়েছে।