মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষার দাবীতে রাজধানীতে খেলাফত মজলিসের মিছিল

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


খেলাফত মজলিসের মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের বলেছেন, আমাদের সামনে মাহে রমজান যখন উপস্থিত ঠিক সেই মুহূর্তে অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইল, সন্ত্রাসী রাষ্ট্র ইসরাইল হাজার হাজর ফিলিস্তিনীকে হতাহত করেছে। ইতোমধ্যেই ৬০ জন ফিলিস্তিনী বিক্ষোভকারীকে গুলি চালিয়ে শহীদ করা হয়েছে। ইসরাইলের এ হত্যাযজ্ঞ প্রমান করে ইসরাইল শান্তি চায় না। ইসরাইলের মদদদাতা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি চায় না। জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে আমেরিকা মধ্যপ্রাচ্য শান্তি প্রক্রিয়াকে বন্ধ করে দিয়েছে। আমরা এই শান্তিবিনাশী কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। জাতিসংঘসহ বিশ্ব মানবতাকে ইসরাইল ও আমেরিকার এই শান্তিবিনাশী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। অবৈধ সন্ত্রাসী রাষ্ট্র ইসরাইকে শাস্তি প্রদান ও ফিলিস্তিনীদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় মুসলিম বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধ ভূমিকা পালন করতে হবে। একই সাথে এই মাহে রমজানের পবিত্র রক্ষা, দ্রব্যমূল্যের উদ্ধগতি রোধ ও অসহায় মজলুম মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সবাইকে সজাগ ও সোচ্চার হতে হবে।

মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষার দাবীতে খেলাফত মজলিস ঢাকা মহানগরী আয়োজিত স্বাগত মিছিল পরবর্তী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

আজ বাদ জুম্মা বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটের সামনে ঢাকা মহানগরী সভাপতি শেখ গোলাম আসগরের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আজীজুল হকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের যুগ্মমহাসচিব এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসাইন, মুহাম্মদ মুনতাসির আলী কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, মাওলানা নোমান মাযহারী, অধ্যাপক মোঃ আবদুল জলিল, মাওলানা তোফাজ্জল হোসেন মিয়াজী। উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব মাওলানা মুহাম্দ শফিক উদ্দিন, ঢাকা মহানগরী সহসভাপতি মো: জহিরুল ইসলাম, খন্দকার সাহাব উদ্দিন আহমদ, তাওহিদুল ইসলাম তুহিন, আবদুল হাফিজ খসরু, মো: আবুল হোসাইন, খন্দকার সাইফুদ্দিন আহমদ, এডভোকেট রফিকুল ইসলাম, মোস্তাফজুর রহমান ইরান, মোঃ ফয়জুল ইসলাম, কাজী আরিফুর রহমান, হাজী হারুনূর রশীদ, ছাত্র মজলিস নেতা মো: মনিরুল ইসলাম, মনসুরুল আলম মনসুর, রমজান আলী, আবদুল গাফফার, শ্রমিক মজলিস নেতা মোঃ আবুল কালাম প্রমুখ।

সমাবেশের পূর্বে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম উত্তর গেট থেকে বিরাট মিছিল পল্টন মোড়ে, হাউজ বিল্ডিং, দৈনিক বাংলা মোড় হয়ে আবার উত্তর গেটের সমানে এসে সমাবেশে মিলিত হয়।