ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে গোলাগুলি, ৮০ হাজার মানুষের অন্যত্র পলায়ন

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


ঘরবাড়ি ছেলে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যাচ্ছে মানুষ

ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে দু’দেশের সেনাবাহিনীর মধ্যে পাল্টাপাল্টি গুলিবর্ষণের জেরে কমপক্ষে ৮০ হাজার মানুষ ভারতীয় সীমান্ত এলাকা থেকে অন্যত্র চলে গেছেন।

আজ (বৃহস্পতিবার) পাকবাহিনী জম্মু-কাশ্মিরের বারামুল্লা জেলার উরি সেক্টরের কামালকোট এলাকায় স্বয়ংক্রিয় রাইফেলের সাহায্যে গুলিবর্ষণ করেছে। তারা ভারতের সাতটি সীমান্ত চৌকি লক্ষ্য করে একনাগাড়ে গুলিবর্ষণ করছে। ভারতীয় বাহিনীও পাল্টা গুলিবর্ষণ করে পাক বাহিনীকে জবাব দিচ্ছে। গতকাল (বুধবার) রাত থেকে বারামুল্লা ও উরি সেক্টরে পাকিস্তানি সেনারা গুলিবর্ষণ করছে। এছাড়া, গতকাল পাকিস্তানি সেনারা জম্মু সীমান্ত লাগোয়া এলাকায় প্রবল গুলিবর্ষণ করেছে।

বিগত ১০ দিনে সীমান্ত লাগোয়া এলাকায় পাকিস্তানের গুলি ও মর্টার হামলার পরিপ্রেক্ষিতে জম্মু সীমান্ত এলাকার একশ’ গ্রামকে খালি করে দেয়া হয়েছে। এসব এলাকার কমপক্ষে আশি হাজার মানুষ তাদের ঘরবাড়ি ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছেন। এরমধ্যে আড়াই হাজার মানুষ ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নিয়েছেন। ওই এলাকায় গত চার দিনে ১১ জন নিহত ও একশ’র বেশি মানুষ আহত হয়েছেন।

সম্প্রতি জম্মুর সাম্বা, অরনিয়া এবং আর এস পুরা সেক্টরে পাকিস্তানি সেনারা একনাগাড়ে গুলিবর্ষণ করছে। আর এস পুরা সেক্টরে গতকাল দু’জন বেসামরিক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। গত চার দিনে আর এস পুরা সেক্টরে পাক সেনাদের গুলিবর্ষণে এক সেনা সদস্যসহ ৬ জন নিহত ও আট জন আহত হয়েছে।

গণমাধ্যমের অন্য এক সূত্রে প্রকাশ, আন্তর্জাতিক সীমান্তের সাম্বা, অরনিয়া, রামগড়, আর এস পুরা ও হীরানগর সেক্টরে পাকিস্তানি বাহিনীর গত কয়েকদিন ধরে একনাগাড়ে গুলিবর্ষণের ফলে একশ’র বেশি গ্রাম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পাক বাহিনী ত্রিশের বেশি সীমান্ত চৌকি টার্গেট করে ৮০ ও ১২০ মি.মি. মর্টার হামলা চালাচ্ছে।


উৎস, পার্সটুডে