গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিরুদ্ধে আরো ৩ মামলা, গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট 


বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতার পরোয়ানা জারি করেছে আদালত।

অন্যদিকে এঘটনায় আজও চট্টগ্রাম আদালতে আরো ৩টি পৃথক রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ নিয়ে গত দু’দিনে তাঁর বিরুদ্ধে মোট চারটি মামলা দায়ের করা হল।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে চট্টগ্রাম জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৪র্থ আদালত এর বিচারক শহীদুল্লাহ কায়সার এ আদেশ দেন। ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন মুহুরীর দায়ের করা মামলায় আদালত এ গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন।

একই আদালতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক আকরাম হোসেনে’র দায়ের করা অপর এক মামলায় গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিরুদ্ধে সমন জারি করেন।

এছাড়া চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম (৫ম) আল ইমরান খান’র আদালতে সাবেক নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি’র দায়ের করা রাষ্ট্রদ্রোহ মামলাটি এজাহার হিসেবে নথিভূক্ত করে ব্যবস্থা নিতে ওসি পাঁচলাইশ থানাকে নির্দেশ দিয়েছেন।

বাদী পক্ষের আইনজীবী এডভোকেট ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী ও এড. সমীর দাশ গুপ্ত মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। মামলাগুলো বাংলাদেশ দন্ডবিধির ১২৪(ক),৫০৬ ও ১৫৩ ধারায় দায়ের করা হয়।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটুক্তি করে মানহানিকর বক্তব্য প্রদান করায় ফটিকছড়িতেও গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীসহ অজ্ঞাত আরো ৬০/৭০জনকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে। ।

গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় ফটিকছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো জামাল উদ্দিন থানায় উপস্থিত হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

ফটিকছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকির হোসাইন মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে এ মামলায় ২জন গ্রেফতার হয়েছে বলেও দাবি করেন।

এদিকে এ বক্তব্যের জের ধরে গতকাল বুধবার রাতে গিয়াস কাদেরের নগরীর গুডসহিল বাসভবনে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর করেছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ফটিকছড়ি উপজেলা ও পৌরসভা বিএনপি আয়োজিত জিয়াউর রহমানের ৩৭ তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আলাচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে বক্তব্য দেন। গিয়াস কাদের তাঁর বক্তব্যে বলেন, শেখ মুজিবের মৃত্যুর পর ইন্নালিল্লাহ পড়ার লোক ছিলনা। বর্তমান শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের অবস্থার তার চেয়েও ভয়াবহ হবে। ক্রসফায়ারের নামে এতো মানুষ হত্যার দায় আপনাকে নিতে হবে।