মারকাজুল হুফফাজের ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


মারকাজুল হুফফাজ ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসা কর্তৃক আলেম-ওলামা সাংবাদিক ও অবিভাকদের সম্মানে আয়োজিত ইফতার ও দোয়া মাহফিল শুক্রবার রাজধানীর টিকাটুলিতে অবস্থিত মাদরাসা ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এতে মাদরাসার প্রিন্সিপ্যাল উস্তাযুল হুফ্ফাজ হাফেজ কারী সালামাতুল্লাহর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের গভর্নর মিসবাহুর রহমান চৌধুরী।

বিশেষ অতিথি ছিলেন, ঢাকা পেট্রোল ওয়ারির এসি জিয়াউল আলম ও ইনসাফ সম্পাদক সাইয়েদ মাহফুজ খন্দকার প্রমুখ ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মিসবাহুর রহমান চৌধুরী বলেন, দেশে এখন মাদক বিরোধী অভিযান চলছে, এটা অবশ্যই প্রশংসনীয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে এমন সাহসী পদক্ষেপের জন্য ধন্যবাদ। তবে আমরা চাই যেন কোন নিরপরাধ ব্যক্তি এই অভিযানে ক্ষতিগ্রস্ত না হোক।

তিনি প্রশাসনকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনাদের অভিযানে মাদক চোরা কারবারিরা ধরা পড়ছে, কেউ কেউ ক্রসফায়ারে নিহতও হয়েছে। কিন্তু এর মধ্যে একজনেকেও মাদরাসা শিক্ষিত পাবেন না। মাদরাসা গুলোতে খোঁজ নিয়ে দেখেন, সেখানে কোন মাদক সেবি নেই। আর অনেকেই বিভিন্ন অজুহাতে মাদরাসার দিকে সন্ত্রাসবাদের ইঙ্গিত তুলেন, আপনারা খোঁজ নিয়ে দেখুন মাদরাসায় কোন সন্ত্রাসবাদী নেই। যারা ভোঁর রাতে উঠে গোনাহ মাপের জন্য আল্লাহর দরবারে দোয়া করে, তাঁরা কি করে সন্ত্রাসবাদে জড়াবে? আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও এ বিষয় অবগত আছেন।

তিনি আরো বলেন, যারা মাদরাসাগুলোকে সন্ত্রাসবাদীদের আস্তানা বলে মিথ্যাচার করে, তাঁরা মূলত এই দেশ থেকে ইসলামী শিক্ষাকে ধংস করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত।

ঢাকা পেট্রোল ওয়ারির এসি জিয়াউল আলম বলেন, মাদক আজ আমাদের সমাজকে গ্রাস করে ফেলেছে। যে পরিবারে একজন মাদক সেবি আছে, সে পরিবার অশান্তির আখড়ায় পরিণত হয়। তাই আসুন, মাদক নির্মূলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে সহযোগিতা করি। আমাদের সমাজটাকে মাদক মুক্ত করি।

ইনসাফের সম্পাদক সাইয়েদ মাহফুজ খন্দকার বলেন, মারকাজুল হুফফাজ ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসাটি একটি ব্যতিক্রমী ইসলামী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। আমাদের দেশে অসংখ্য ইসলামী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থাকলেও তার বেশীরভাগই ছেলেদের জন্য সংরক্ষিত। সাধারণত মেয়েদের নিয়ে দ্বীনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুব কমই হয়ে থাকে। আর যদি প্রতিষ্ঠান করাও হয়, তাহলেও সেটা ভাল মানের হয়ে উঠে না। সে হিসেবে মারকাজুল হুফফাজ একটু ব্যতিরক্রম। এটি মূলত মেয়েদেরকে প্রাধান্য দিয়ে করা হয়েছে, সাথে বালক শাখাও আছে। এবং এর পড়াশুনার মানও অত্যন্ত ভাল। ইতিমধ্যেই এই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা দেশের গণ্ডী পেরিয়ে বিদেশের মাটিতেও সফলতার নজীর স্থাপন করেছে। তাই আসুন, আমরা আমাদের সন্তান-সন্ততি, ভাই বোনদের দ্বীন শিখার জন্য এই মাদরাসাটিকে নির্বাচন করি । এটাই হবে এই মাদরাসার প্রতি আমাদের সহযোগিতা।

এতে আরো বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের ঢাকা মহানগর সভাপতি মাওলানা এনামুল হক মুসা, মাওলানা আজিজুর রহমান হেলাল, আল মাদানি ফাউন্ডেশনের সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ উদ্দিন সাব্বীর প্রমুখ।