ইশা ছাত্র আন্দোলন-এর আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন-এর আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল আজ রাজধানী বিজয়নগরের আত্ব-তরিক মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। কেন্দ্রীয় সভাপতি শেখ ফজলুল করীম মারুফ-এর সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি জেনারেল এম. হাছিবুল ইসলাম-এর পরিচালনায় এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম (চরমোনাই পীর)।

এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলান ইউনুছ আহমাদ, রাজনৈতিক উপদেষ্টা অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন, অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. আবদুল লতিফ মাসুম, দৈনিক ইনকিলাবের সহকারী সম্পাদক মাওলানা উবাইদুর রহমান খান নদভী, জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের পেশ ইমাম মুফতি মুহিব্বুল্লাহিল বাকী আন-নদভী, মুফতি মিজানুর রহমান, শিক্ষাবিদ মাওলানা মুহাম্মাদ সালমান, মাসিক মদিনার সম্পাদক আহমাদ বদরুদ্দিন খান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে চরমোনাই পীর বলেন, একটি দেশের সার্বিক উন্নতি নির্ভর করে সুশিক্ষিত জনগোষ্ঠীর উপর। ইসলামী শিক্ষার পাশাপাশি যুগোপযোগী শিক্ষায় শিক্ষিতরাই সুশিক্ষিত জনগোষ্ঠী। কুরআনী শিক্ষার অভাবে মানুষ চরিত্রহীন হচ্ছে।

তিনি বলেন, দেশে আইনের শাসনের দীর্ঘমেয়াদে অনুপস্থিতিতে অপরাধ ও মাদকের বিস্তার ঘটছে। মত প্রকাশ ও শান্তিপূর্ণ রাজনৈতিক কর্মসূচিতে সরকারের হস্তক্ষেপে সঠিক রাজনীতির চর্চা ব্যাহত হচ্ছে। বিচার বিভাগের প্রতি খোদ সরকারেরই এখন আর আস্থা আছে বলে মনে হয় না। যদি আস্থা থাকতো তবে বন্ধুকযুদ্ধের নামে মানুষ হত্যা করতো না।

চরমোনাই পীর বলেন, স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশে জনগণের ট্যাক্সের টাকায় নির্বাচন কমিশনকে দিয়ে সরকার প্রহসনের নির্বাচন করে নির্বাচনী ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে। তিনি বলেন, জনগণের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হলে মেরুদ-হীন এই নির্বাচন কমিশন দিয়ে সম্ভব নয়। অবাধ সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন ও অন্তর্বর্তীকালীন নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন আয়োজন করতে হবে।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলান ইউনুছ আহমাদ বলেন, দেশের বিভীষিকাময় পরিস্থিতির পরিবর্তনে একটি সর্বাত্বক গণবিপ্লব অপরিহার্য হয়ে পড়েছে। এ মুহুর্তে প্রয়োজন জাতীয় ঐক্যের। বাংলাদেশকে কল্যাণ রাষ্ট্র গঠনের প্রস্তুতি নিতে ছাত্র সমাজের প্রতি আহ্বান জানান। ইশা ছাত্র আন্দোলন গঠনমূলক কর্মকা-ের মাধ্যমে ছাত্রসমাজ ও জনগণের আস্থা ফিরিয়ে আনতে কাজ করবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

শেখ ফজলুল করীম মারুফ

ইশা ছাত্র আন্দোলন-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি শেখ ফজলুল করীম মারুফ বলেন, রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় বিচারবহির্ভুত মানুষ হত্যা চলছে। নিপীড়ন সরকারের অবিচ্ছেদ্য চরিত্রে পরিণত হয়েছে। মাদক দমনের মতো ভালো কাজেও সরকার নিপীড়নের আশ্রয় নিয়েছে। এ থেকে উত্তরণের জন্য আইন ও বিচার বিভাগকে কার্যকরী করা এবং দুর্নীতিকে সমূলে উৎখাতে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।