গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ, প্রচণ্ড গরমে ১৬ ঘণ্টার রোজা, তবু রোজা ছাড়েননি আফগান ক্রিকেটাররা

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


প্র্যাকটিস সেশনে আফগানিস্তানের দুই তারকা রশিদ খান ও মোহাম্মদ শাহজাদ – ফাইল ছবি

প্রচণ্ড গরমে ১৬ ঘণ্টার রোজা, ইফতারের একটু আগে শুরু হয় ওয়ার্মআপ, ইফতারের আধঘণ্টা পরেই ম্যাচ তবুও রোজা রেখেই পুরো সিরিজ খেলেছেন আফগানিস্তান জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। পবিত্র রমজান মাসে অনুষ্ঠিত হলো বাংলাদেশ বনাম আফগানিস্তানের তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ। ভারতের উত্তরাঞ্চলীয় হিমালয় অধ্যুষিত শহর দেরাদুনে অনুষ্ঠিত হয়েছে সিরিজের ম্যাচগুলো।

পাহাড়ি শহর হওয়ার কারণে দেরাদুনের আবহাওয়া সকালে ও সন্ধায় সম্পূর্ণ দুই রকম। সন্ধ্যা নামার সাথে সাথে শহরটিতে শীত নামে, তবে সারাদিনের আবহাওয়া দিল্লির মতোই থাকে প্রচণ্ড উত্তপ্ত। এমন উত্তপ্ত আবহাওয়ায় রোজা রেখে প্রাকটিস করা যে কোন খেলোয়াড়ের জন্য কঠিন। যদিও তা বাধা হতে পারেনি আফগান ক্রিকেটারদের জন্য।

সিরিজের খেলাগুলো যদিও হয়েছে সন্ধ্যার পরে, তবে ক্রিকেটারদের সাধারণত দিনে দুই সেশন প্র্যাকটিস করতে হয়। আর এমন গুরুত্বপূর্ণ একটি সিরিজে তো প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চলে অন্য সময়ের চেয়ে আরো বেশি। তবে এসব কিছুই বাধা হতে পারেনি আফগান ক্রিকেটারদের জন্যা। তারা সবাই রোজা রেখেই পুরো সিরিজ খেলেছেন।

দেরাদুনে সেহরির সময় শেষ হয় রাত সোয়া তিনটায়, আর ইফতার হয় সন্ধ্যা সোয়া সাতটায়। সে হিসেবে শহরটিতে রোজা রাখতে হয় ১৬ ঘণ্টা। এই দীর্ঘ সময় রোজা রেখেই সন্ধ্যার পর প্রতিটি ম্যাচ খেলেছেন আফগান ক্রিকেটাররা। আবার যেদিন ম্যাচ ছিলো না, সেদিন করতে হয়েছে দীর্ঘ সময় প্র্যাকটিস। যা সারাদিন অভূক্ত থাকা থাকা ক্রিকেটারদের জন্য কঠিনই বটে।

টস হয়েছে স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায়। যা ইফতারির মাত্র ১৫ মিনিট পর। ছয়টার মধ্যেই মাঠে চলে আসতে হয়েছে ক্রিকেটারদের। ইফতারে আধাঘণ্টা আগে শুরু করতে হয়েছে ওয়ার্মআপ। এরপর ওয়ার্মআপের মধ্যেই সুযোগ মতো সেরে নিতে হয়েছে ইফতার, পাশাপাশি চলেছে ম্যাচের জন্য অন্যান্য প্রস্তুতি।

ক্রিকইনফোর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ওয়ার্মআপের সবচেয়ে শেষ দিকে ছিলো ফিল্ডিং প্র্যাকটিস। আয়ারল্যান্ডের সাবেক ব্যাটসম্যান জন মুনি আফগাস্তিানের ফিল্ডিং কোচ। তার সাথে সেই ইফতারির আগ মূহুর্তে বাউন্ডারি লাইনে বল আটকানোর মহড়া দিয়েছেন আফগান খেলোয়াড়রা। করেছেন ডিরেক্ট হিট ও অনেক দূরের ক্যাচ নেয়ার প্র্যাকটিস।

গতকাল ম্যাচের শেষ বলটিতে আরিফুল হকের শট যেভাবে ফিরিয়ে শফিকুল্লাহ শফিক ম্যাচ জিতিয়েছেন দলকে সেটি যেকোন বিচারে সেরা। মূলত জন মুনির অধীনেই দলটি উন্নতি করেছে ফিল্ডিংয়ে।