আনোয়ার চৌধুরীর বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ, গভর্নর পদ থেকে বরখাস্ত

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ব্রিটেনের কেইম্যান আইল্যান্ডে নিযুক্ত গভর্নর আনোয়ার চৌধুরীকে তার পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

বুধবার দেশটির ফরেন অ্যান্ড কমনওয়েলথ অফিসের এক বিবৃতিতে গভর্নরের পদ থেকে তাকে বরখাস্তের তথ্য জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কেইম্যান আইল্যান্ডের গভর্নর আনোয়ার চৌধুরীর বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি অভিযোগ উঠেছে; যেগুলোর তদন্ত শুরু হবে। তবে ঠিক কি ধরনের অভিযোগে তাকে সরিয়ে দ্বীপ সরকারের প্রধানের পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে সেব্যাপারে বিস্তারিত জানা যায়নি।

কেইম্যান আইল্যান্ডের প্রধান, ডেপুটি গভর্নর ও অন্যান্য কর্মকর্তারা আনোয়ার চৌধুরীকে তার পদ থেকে সরিয়ে দিতে ফরেন অ্যান্ড কমনওয়েলথ অফিসকে নির্দেশ দেন মঙ্গলবার রাতে। আনোয়ার চৌধুরীর বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি অভিযোগ রয়েছে বলে জানানো হলেও সেই অভিযোগগুলো কেইম্যান আইল্যান্ডের নাকি অন্য কোনো ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সেবিষয়ে কোনো তথ্য দেয়নি ব্রিটিশ ফরেন অ্যান্ড কমনওয়েলথ অফিস।

এমনকি অভিযোগের ধরন সম্পর্কেও কোনো ধারণা দেয়া হয়নি কেইম্যান অ্যাইল্যান্ডের বিবৃতিতে। আইল্যান্ডের প্রধান ম্যাকলুঘলিন চলতি সপ্তাহে প্রায় সাড়ে চার হাজার মাইল দূরের এই দ্বীপ থেকে লন্ডনে আসেন।

ওই সময় যুক্তরাজ্য সরকারের ওভারসিস মিনিস্টার লর্ড নাজির আহমদ গর্ভনর পদ থেকে আনোয়ার চৌধুরীকে সরিয়ে দেয়ার নির্দেশ দেন। চলতি বছরের ২৬ মার্চ প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ব্রিটেনের কেইম্যান আইল্যান্ডের গভর্নর হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

আগামী চার থেকে ছয় সপ্তাহের মধ্যে আনোয়ার চৌধুরীর বিষয়ে উঠা অভিযোগের তদন্ত শুরু হবে। এসময় তিনি যুক্তরাজ্যে অবস্থান করবেন। আইল্যান্ডের প্রধান ম্যাকলুঘলিন বলেন, অামি দৃঢ় প্রত্যয়ী যে, কেইম্যান আইল্যান্ড পরিচালনায় এ ঘটনা কোনো নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে না।

প্রসঙ্গত, আনোয়ার চৌধুরী বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এবং এক সময় বাংলাদেশে যুক্তরাজ্যের হাইকমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।