নবী (সাঃ) এর মুচকি হাসি সম্পর্কে একটি সুন্দর ঘটনা

নবী (সাঃ) এর মুচকি হাসি সম্পর্কে একটি সুন্দর ঘটনা

সংকলনে: সোহেল আহম্মেদ | ইসলাম ডেস্ক


হযরত আবু যার (রাঃ) বলেন, রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন,আমি সে ব্যাক্তি সম্পর্কে ভালভাবে জানি, যে সর্ব প্রথম বেহেশতে প্রবেশ করবে। আর সে ব্যাক্তি সম্পর্কেও জানি যে সর্বশেষ দোযখ হতে বের হবে।

কেয়ামতের দিন আল্লাহর দরবারে এক ব্যাক্তিকে উপস্থিত করা হবে। তার সামনে তার ছোট ছোট গুনাহগুলি উত্থাপন করার ও বড় বড় গুনাহগুলি গোপন করার নির্দেশ দেওয়া হবে। তাহাকে তার ছোট ছোট গুনাহগুলি সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হবে, তুমি কি অমুক দিন অমুক গুনাহ্ করনি? সে বাধ্য হয়ে স্বীকার করবে। কারন অস্বীকারের কোন উপায় থাকবেনা।
আর কবীরা গুনাহের ব্যাপারে ভীত হবে,( না জানি এর কারনে কি অবস্থা হয়)।
তারপর আদেশ হবে, তার প্রত্যেক গুনাহের পরিবর্তে একটি করে নেকী দিয়ে দাও। ইহা শুনে সে বলে উঠবে, আমার আরো অনেক গুনাহ্ রয়েছে যা এখানে দেখছিনা।

হযরত আবু যার (রাঃ) বলেন, আমি দেখলাম রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এ পর্যন্ত বলে এমনভাবে হেসে উঠলেন যে, তার দাঁত মুবারক প্রকাশ হয়ে পড়ল। (হাসির কারন ছিল, যে গুনাহের ব্যাপারে ভীত ছিল সে উহা প্রকাশে আগ্রহী হয়ে উঠল)

হযরত আয়েশা (রাঃ) বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে এরুপ মুখ খুলে হাসতে দেখিনি যে আলজিভ দেখা যায়। তবে তিনি মুচকি হাসতেন। (বুখারী ও মুসলিম)