মার্চ ২৪, ২০১৭

জঙ্গীবাদ মোকাবেলায় কুরআনের সুশিক্ষা ছড়িয়ে দেওয়া আবশ্যক: মাওলানা ইউসুফ নূর

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

514550724_o২৯ রমজান আন-নূর কালচারাল সেন্টার নিউইয়র্ক শাখার ব্যবস্থাপনায় নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটের আন-নূর জামে মসজিদে অনুষ্ঠিত হয় আল-কুরআন সন্ধ্যা। আন-নূর কালচারাল সেন্টার যুক্তরাষ্ট্র শাখার পরিচালক মুফতী আব্দুল্লাহর সভাপতিত্বে ও নির্বাহী পরিচালক মুফতী মুহাম্মদ ইসমাইলের পরিচালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক ছিলেন কাতার ধর্ম মন্ত্রণালয়ের ইমাম ও খতিব এবং আল-নূর কালচারাল সেন্টার, কাতার-এর নির্বাহী পরিচালক মাওলানা ইউসুফ নূর। অনুষ্ঠানের সূচনা পর্বে সদ্য ইন্তেকালকৃত বাংলাদেশের প্রখ্যাত ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা মুহিউদ্দিন খানকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে তাঁর বিদেহী আত্মার মাহফিরাত কামনা করে দুআ করা হয় এবং বাংলা ভাষায় আল-কুরআনের প্রচার ও প্রসারে তাঁর অবদানের স্মৃতিচারণ করে অনুষ্ঠানটি তাঁর জন্য উৎস্বর্গ করা হয়।

আল-কুরআন সন্ধ্যার কর্মসূচীর মধ্যে ছিল-সুললিত কণ্ঠে আল-কুরআনের তিলাওয়াত, আল-কুরআন ও তাফসীর গ্রন্থের প্রদর্শনী, আল-কুরআন জ্ঞান প্রতিযোগিতা, মনোজ্ঞ আলোচনা, দুআ ও মুনাজাত ইত্যাদি।

প্রবাসের মাটিতে পবিত্র রমজানে বরকমতময় এই সন্ধ্যা পরিণত হয় হাফেজে কুরআন ও কুরআন প্রেমিকদের মিলনমেলায়। অনুষ্ঠানের প্রধান আলোচক মাওলানা ইউসুফ নূর উপস্থিত সবাইকে আল-কুরআন সহীস শুদ্ধভাবে শিক্ষা এবং আল-কুরআনের অর্থ জানা ও গবেষণার প্রতি আহবান জানান। তিনি বলেন, ধর্মের নামে বিভিন্ন ফেৎনা ও জঙ্গীবাদ মোকাবেলায় কুরআনের সুশিক্ষা সবার মাঝে ছড়িয়ে দেওয়া আবশ্যক। কারণ,আল-কুরআনের সুশিক্ষিত প্রজন্মকে কেউ ধর্মের নামে বিভ্রান্ত করতে পারবে না। তিনি বলেন, বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে আল-কুরআন সর্বদা সোচ্চার। এ গ্রন্থ সবধরনের অশান্তি ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির বিরোধী। তিনি সকল অভিভাবককে সন্তানদের কুরআনের শিক্ষা দেওয়ার আহবান জানান। সভাপতির বক্তব্যে মুফতী মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ সবাইকে আল-কুরআন নির্দেশিত পথে চলার আহবান জানান এবং ভবিষ্যতে বাংলাদেশ কমিউনিটি ছাড়াও অন্যদেরকে আল-কুরআন সন্ধ্যায় আনার ব্যাপারে যাবতীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার ঘোষণা দেন।

আল-কুরআন সন্ধ্যায় সম্প্রতি ঢাকার গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরায় ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলায় বিদেশী নাগরিক, পুলিশ কর্মকর্তা হতাহতের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয় এবং বাংলাদেশের উলামা মাশায়েখকে এ ব্যাপারে সোচ্চার হওয়ার আহবান জানানো হয়। হামলায় নিহদের আত্মার মাগফিরাত কামনা ও আহতের আশু সুস্থতা কামনা করে দুআ করা হয়। অনুষ্ঠানে কুরআন তিলাওয়াত করেন হাফেজ মেহেদী হাসান, হাফেজ উসমান গণি, হাফেজ নুরুন্নবী, হাফেজ আতাউল্লাহ, হাফেজ হাসান মিয়া। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-নিউইয়র্ক টাইম টেলিভিশনের উপস্থাপক মাহমুদুল ইসলাম, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শওকত আলী, মাওলানা মাহমুদুর রহমান, মুফতি নাঈমুল্লাহ ও হেলালুদ্দীনসহ বাংলাদেশ কমিউনিটি গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

উল্লেখ্য, পবিত্র রমজান উপলক্ষ্যে আন-নূর কালচারাল সেন্টার নিউইয়র্ক-এর উদ্যোগে মাসব্যাপী শিশু-কিশোর ও মহিলাদের জন্য কুরআন শিক্ষার আসর, বয়স্কদের জন্য কুরআন ও হাদীস শিক্ষার আসর চলছে। এছাড়াও ইফতারের পূর্বে আন-নূর জামে মসজিদে নিয়মিত ধর্মীয় আলোচনা ও প্রথমবারের মত মসজিদে খতমে তারাবী অনুষ্ঠিত হচ্ছে।