কেয়ামতের দিন সর্বপ্রথম যে তিন ব্যক্তির বিচার হবে

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | মাহবুবুল মান্নান


হাদীস শরীফে এসেছে কেয়ামতের দিন সর্বপ্রথম যাদের বিচার করা হবে তাদের একজন হলো শহীদ। তাকে ডেকে বলা হবে তোমার উপর দুনিয়াতে এই নেয়ামত দান করা হয়েছিল। তুমি কি তার শোকরিয়া আদায় করেছো? সে বলবে হে রাব্বুল আলামীন! তোমার সন্তুষ্টির জন্য তোমার রাস্তায় যুদ্ধ করে শহীদ হয়ে জান উৎসর্গ করে দিয়েছি।
উত্তরে বলা হবে, মিথ্যা কথা। তুমি আসলে জিহাদ করেছিলে লোকে তোমাকে বাহাদুর বলবে বলে। তা তো বলা হয়েছেই। অতঃপর তাকে জাহান্নামে নিক্ষেপ করা হবে!

দ্বিতীয় ব্যক্তি হলো আলেম, তাকে ডেকে তার উপর প্রদত্ত নেয়ামত উল্লেখ করে বলা হবে, তুমি কি ইহার শোকরিয়া আদায় করেছো?
সে বলবে আমি নিজে ইলম শিখেছি ও অন্যকে শিখিয়েছি এবং তোমার সন্তুষ্টির জন্য কুরআন তেলাওয়াত করেছি।উত্তরে বলা হবে এইসব মিথ্যা, তুমি এইসব করেছো লোকে যেন তোমাকে আলেম ও ক্বারী বলে!তা তো বলা হয়েছেই। অতঃপর তাকে আধোঃমুখে জাহান্নামে নিক্ষেপ করা হবে!

তৃতীয় ব্যক্তি হলো দানশীল। তাকে ডেকে তার উপর প্রদত্ত যাবতীয় নেয়ামতের কথা উল্লেখ করে বলা হবে,তুমি আমার দেওয়া নেয়ামতের কি শোকরিয়া করেছো?সে বলবে,এমন কোন পুণ্যের কাজ ছিল না যেখানে আমার সম্পদ তোমার সন্তুষ্টির জন্য ব্যয় করা হয়নি। ইরশাদ হবে,তুমি মিথ্যা বলেছো!তুমি এইসব করেছিলে যাতে লোকে তোমাকে দানশীল বলে!অতঃপর তাকে ও জাহান্নামে নিক্ষেপ করা হবে!

হাদীসের উদ্দেশ্য তিনজন লোক নয় বরং তিন প্রকারের লোক। সুতরাং আমাদের উচিত লোক দেখানো কোন কাজ করা থেকে বিরত থাকা। এবং প্রতিটা কাজ ‘ইখলাস’এর সহিত করা।
(মুসলিম-১৯০৫)