ইসরায়েলকে ইয়াহুদি রাষ্ট্র ঘোষণা করে পার্লামেন্টে বিল পাস

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | আন্তর্জাতিক ডেস্ক


ইয়াহুদীবাদী সন্ত্রাসী ইসরায়েলকে ইহুদি রাষ্ট্র ঘোষণা করে বিতর্কিত একটি বিল পাস করেছে দেশটির পার্লামেন্ট নেসেট । একইসাথে হিব্রুকে রাষ্ট্রভাষার স্বীকৃতিও দিয়েছে ইসরাইলী পার্লামেন্ট।

আজ ১৯ জুলাই বৃহস্পতিবার পার্লামেন্টে প্রায় সাড়ে ৮ ঘণ্টা বিতর্কের পর বিলটি পাস হয়। ১২০ সদস্যের পার্লামেন্টে বিলের সমর্থনে ৬২ ও বিরোধিতা করে ৫৫ জন ভোট দেন। আর ভোটদানে বিরত থাকেন দুই এমপি। ইসরাইলী প্রেসিডেন্ট এবং অ্যাটর্নি জেনারেলও এর বিপক্ষে। এমনকি যুক্তরাষ্ট্রের ইহুদি সংগঠনও বিলটির বিরোধিতা করেছে। এ বিল পাসের মধ্যদিয়ে দেশটিতে থাকা অন্যান্য ধর্মের মানুষ এখন সেখানে সরকারিভাবে সংখ্যালঘু হিসেবে চিহ্নিত হবে।

বিলে বলা হয়েছে, হিব্রুকে জাতীয় ভাষা ও ইহুদী বসতি সম্প্রসারণকে জাতীয় স্বার্থ হিসেবে বিলে বর্ণনা করা হয়েছে।  বিলে সরকারী ভাষা হিসেবে আরবীর মর্যাদাকে অগ্রাহ্য করা হয়েছ।‘ সমগ্র ও একাট্ট’ জেরুজালেম ইসরায়েলের রাজধানী হবে।

বিলটি নিয়ে আরব পার্লামেন্টারিয়ানরা বিলের তীব্র বিরোধিতা করলেও ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু এই দিনকে বিশ্বের ইহুদিদের আত্ম-পরিচয় নির্ধারণের দিন বা ঐতিহাসিক মুহূর্ত বলে উল্লেখ করেছেন।

ইহুদি সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ হলেও ইসরাইলে বিশ শতাংশ মুসলিমের বসবাস। পার্লামেন্টেও বেশ কিছু আরব এমপি রয়েছেন। ৭০ বছর ধরে সব ধর্মের মানুষকে কাগজে-কলমে সমান অধিকার দেয়া দেশটির পার্লামেন্টে বিলটি পাস হওয়ার সময় কালো পতাকা প্রদর্শন করে এর বিরোধিতা করেন আরব এমপিরা।

এদিকে বিলটির বিরোধিতা করা পার্লামেন্টারিয়ান আহমেদ তিবি বলেন, শোক ও দু:খ ভরা মন নিয়ে বলছি আজ গণতন্ত্রের মৃত্যু হল।

৭২ বছর বয়সী চিকিৎসক বাসাম বিসারাহ বলেছেন, আমি মনে করি এটি একটি উগ্র ডান-পন্থী সরকারের করা বর্ণবাদী একটি আইন ও এরমধ্য দিয়ে ভবিষ্যতেও বর্ণবিদ্বেষী জাতি গঠনের বীজ বপন করা হল

উল্লেখ্য, ইসরায়েলের কোন সংবিধান নেই। দেশটিতে ধারাবাহিকভাবে পাশ করানো কয়েকটি মৌলিক আইনের রয়েছে সাংবিধানিক মূল্য। এই জাতি রাষ্ট্র আইনটি হলো দেশটির ১৪তম মৌলিক আইন।