ফতুল্লায় খুন্তি গরম করে শিশুকে নির্যাতন, দম্পতি গ্রেফতার

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


নারায়ণগঞ্জের জেলার ফতুল্লায় ৮ বছর বয়সী মাহি নামক এক শিশু খুন্তি গরম করে ছ্যাঁকা ও নির্যাতন করেছে খোকন দম্পতি। গতকাল শুক্রবার রাতে বাঁচাও বাঁচাও চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজনকে নিয়ে ওই দম্পতির বাসায় গিয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করে থানায় খবর দেয় জাকির।

আজ ২১ জুলাই শনিবার বিকালে প্রতিবেশী জাকির হোসেন শনি বাদী হয়ে গৃহকর্তা আতাউল্লাহ খোকন ও উর্মি দম্পতির বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

এ ঘটনায় পুলিশ ওই দম্পতিকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে। আটককৃতরা হলেন কুমিল্লা জেলার হোমনা থানার কাশিপুর গ্রামের মৃত. আ. হাকিম মিয়ার ছেলেআতাউল্লাহ খোকন ও আতাউল্লাহ খোকনের স্ত্রী উর্মি ।

জানা যায়, ফতুল্লার পূর্ব ইসদাইর আনন্দনগর এলাকার শহীদুল্লাহর বাড়ির ভাড়াটিয়া আতাউল্লাহ খোকন ও উর্মি আক্তারের বাসায় ৩ মাস ধরে পিতামাতাহীন শিশু মাহিকে গৃহপরিচারিকা হিসেবে কাজে নেয়। প্রায় সময় শিশুটি বাসায় কান্নাকাটি করত। শুক্রবার রাতে শিশুটি নির্যাতন সহ্য না করতে পেরে বাঁচাও বাঁচাও চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজনকে নিয়ে ওই দম্পতির বাসায় গিয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করে থানায় খবর দেয় জাকির।

সংবাদ পেয়ে পুলিশ গিয়ে শিশুটির হাতে ও মুখে বর্বর নির্যাতনের চিহ্ন দেখতে পায়। তখন শিশুটিকে জিজ্ঞেস করলে সে জানায়, কথায় কথায় মারধর করত। তাকে কারণে-অকারণে কাজে ভুল ধরে খুন্তি গরম করে হাতে ও শরীরে ছ্যাঁকা দিত। ২০-২৫ দিন আগে তার হাতে গরম খুন্তি দিয়ে ছ্যাঁকা দেয়ায় তার ডান হাতের চামড়া উঠে যায়। শুক্রবারও সেই ক্ষত হাতে ছ্যাঁকা দেয়া হয়।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি শাহ মোহাম্মদ মঞ্জুর কাদের জানান, শিশুটিকে শহরের খানপুর ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। শিশুটি অনাথ। তার কোনো আত্মীয়স্বজন না পাওয়ায় প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে ওই বাড়ির প্রতিবেশী জাকির শনি বাদী হয়ে নির্যাতনের নানা বিষয় উল্লেখ করে মামলা করেছেন।