জানুয়ারি ১৭, ২০১৭

খোতবা নিয়ন্ত্রণ কোনোভাবেই দেশের জনগণ মেনে নেবে না: আল্লামা কাসেমী

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

আল্লামা নূর হুসাইন কাসেমী
আল্লামা নূর হুসাইন কাসেমী

জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব আল্লামা নূর হোছাইন কাসেমী বলেন, ইসলামী ফাউন্ডেশন কর্তৃক জুমার খুতবায় হস্তক্ষেপ সারা দেশের ধর্মপ্রাণ মানুষের হৃদয়ে আঘাত দিয়েছে। ৯২% মুসলমানদের দেশে জুমার খুতবা নিয়ন্ত্রণ কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। এভাবে চলতে দেওয়া হলে এক সময় প্রকৃত ধর্ম পালন করা কঠিন হয়ে পড়বে। ধর্মের বিভিন্ন শাখায় পরিবর্তন পরিবর্ধন হয়ে জাতীর সামনে ধর্মের একটি বিকৃতরূপ উপস্থাপিত হবে। হারিয়ে ফেলবে মুসলমানরা তাদের নিজস্ব সকিয়তা। সুতরাং এখনই সময় এর তীব্র প্রতিবাদ গড়ে তোলার।

আজ  মঙ্গলবার বিকাল ২টায় ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ আয়োজিত জরুরী মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী আরো বলেন, বিতর্কিত শিক্ষা আইন ও শিক্ষানীতির কারণে মুসলমান জাতীকে একটি বিজাতীয় জাতীতে পরিণত করার গভীর ষড়যন্ত্র শুরু হয়ে ডালপালা বিস্তার করতে শুরু করেছে। সুতরাং এ বিতর্কিত শিক্ষানীতি ২০১০ ও এ নীতির আলোকে প্রণীত খসড়া শিক্ষা আইন ২০১৬ অভিলম্বে বাতিল করতে হবে। দেশের জনগণকে এ সমস্ত ষড়যন্ত্রের দাঁতভাঙ্গা জবাব দিতে হবে। অন্যথায় ষড়যন্ত্রকারীরা নিজেদেরকে অপ্রতিরুদ্ধ মনে করে নতুন নতুন ষড়যন্ত্রের জাল বিস্তার করবে।

ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সভাপতি মুফতী নাছীর উদ্দীন খানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ওমর ফারুকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক মাওলানা যয়নুল আবেদীন, ছাত্র জমিয়তের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মাওলানা বোরহান উদ্দীন, সোহাইল আহমদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসাইন, সহ সাধারণ সম্পাদক তৈয়বুর রহমান, নাসীর চৌধুরী, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল হামীদ খান, শাব্বির আহমদ রাজী, আহমদুল হক উমামা, কলেজ ভার্সিটি বিষয়ক সম্পাদক হোযায়ফা উমর, সাংস্কৃতিক সম্পাদক বাহাউদ্দিন বাহার, তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক আবু সুফিয়ান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মঈনুদ্দীন খান ও নির্বাহী সদস্য মুজাহিদুল ইসলাম প্রমুখ।