যে মুসলিমকে দাড়ি কাটতে বাধ্য করবে তাকে ইসলামে ধর্মান্তরিত করব: ওয়াইসি

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | আন্তর্জাতিক ডেস্ক


অল ইন্ডিয়া মাসজিদুল-ইত্তেহাদুল মুসলেমিনের (এআইএমআইএম) সভাপতি ও হায়দরাবাদ সাংসদ আসাদউদ্দিন ওয়াইসি

কোনও মুসলিমকে যে দাড়ি কাটতে বাধ্য করবে তাকে যাতে দাড়ি রাখতে হয় সেই ব্যবস্থা নিতে তাকে ইসলামে ধর্মান্তরিত করা হবে বলে মন্তব্য করেছেন অল ইন্ডিয়া মাসজিদুল-ইত্তেহাদুল মুসলেমিনের (এআইএমআইএম) সভাপতি ও হায়দরাবাদের সাংসদ আসাদউদ্দিন ওয়াইসি।

ভারতে ৩১ জুলাই মঙ্গলবার দিল্লি লাগোয়া গুরুগ্রামের সেক্টর ২৯-এ এক মুসলিমকে দাড়ি কাটতে বাধ্য করেন স্থানীয়রা। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তিনি এ বক্তব্য দেন।

দাড়ি রাখা মুসলিমদের সাংবিধানিক অধিকার উল্লেখ করে সাংসদ আসাদউদ্দিন বলেন, একজন মুসলিমকে জোর করে দাড়ি কাটানো হয়েছে। যারা এসব করছে তাদের ও তাদের বাপদের বলছি- শুধু দাড়ি নয়, গলা কেটে ফেললেও আমরা মুসলিমই থাকব।

আসাদউদ্দিন ওয়াইসি অল ইন্ডিয়া মাসজিদুল-ইত্তেহাদুল মুসলেমিনের (এআইএমআইএম) সভাপতি এবং তিনি ভারতের সংসদে হায়দরাবাদ থেকে ৩ বারের নির্বাচিত সাংসদ।

উল্লেখ্য, গত ৩১ জুলাই ভারতের দিল্লির অদূরে গুরুগ্রামের সেক্টর ২৯-এর খাণ্ডাসা মাণ্ডি নামক স্থানে এক মুসলিমকে দাড়ি কাটতে বাধ্য করেন স্থানীয় কিছু যুবক। হরিয়ানার মেওয়াটের বাসিন্দা জাফরউদ্দিন জানিয়েছেন, বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন গুরুগ্রামে। তখনই তাঁকে নানা ভাবে কটাক্ষ করতে শুরু করে স্থানীয় কিছু যুবক। কিছুক্ষণের মধ্যে শুরু হয় মারধর। এর পর জাফরউদ্দিনকে স্থানীয় একটি সেলুনে নিয়ে গিয়ে জোর করে দাড়ি কামিয়ে ফেলা হয়।

এর পর তিনি তাদের দ্বারা শারীরিকভাবে নির্যাতিত হন। একপর্যায়ে ওই যুবকরা তাকে স্থানীয় একটি সেলুনে নিয়ে গিয়ে জোরপূর্বক দাড়ি কামিয়ে দেন। থানায় গিয়ে অভিযোগ করলে তাকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দেন যুবকরা। পর দিন নির্যাতিত জাফরউদ্দিন গুরুগ্রামের সেক্টর ৩৭ থানায় অভিযোগ করলে স্থানীয় ওই তিন যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ।