ফিলিস্তিনে এ বছর ইসরাইলি হামলায় প্রাণ হারানোদের মধ্যে ৩৭ জনই শিশু

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | বেলায়েত হুসাইন


শিশুদের সুরক্ষা দানকারী সংগঠন গ্লোবাল আন্দোলন বলছে, এবছরের শুরু থেকে এপর্যন্ত দখলদার ইসরাইলি অপশক্তির হামলায় ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর এবং গাজা উপত্যকায় অন্ততপক্ষে ৩৭ জন শিশু প্রাণ হারিয়েছে।

স্থানীয় সময় গতকাল রবিবার সংগঠনটির ফিলিস্তিনি শাখার পক্ষ থেকে একটি সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, দখলদার ইসরাইলি বাহিনী কর্তৃক ফিলিস্তিনি শিশুদের লক্ষ্য করে ইচ্ছাকৃতভাবে এরূপ সরাসরি হামলা করা হয়, যেন তারা শাহাদাৎ বরণ করে বা তাদের দেহে এমন দীর্ঘস্থায়ী ও আশংকাজনক ক্ষতের সৃষ্টি হয়, যার আরোগ্য অসম্ভব এবং আজীবন এই শিশু পঙ্গু হয়ে বেঁচে থাকে।

গ্লোবাল আন্দোলন একজন প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে উল্লেখ করে যে, নিহত শিশুদের অধিকাংশই নিষ্পাপ, এদের দ্বারা ইসরাইলি বাহিনী কখনোই কোন ঝুঁকির সম্মুখীন হয়নি।

এসময় চলতি মাসের ৯ তারিখে গাজা উপত্যকার মধ্যাঞ্চলীয় বস্তি দিয়ারে বালাহে্ একটি বাড়িতে লক্ষ্য করে দখলদারি ইসরাইলি বাহিনীর বোমাবর্ষণে শহীদ হওয়া দেড় বছরের শিশু আবু খুমাশ এবং তার মায়ের শাহাদাতের দিকে ইশারা করা হয়। যিনি ৯ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। এবং আবু খুমাশের পিতাও মারাত্মক জখমের শিকার হন এই হামলায়।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, চলমান সংকট নিরসনে শিশুহত্যাই একমাত্র সমাধান নয়।

গ্লোবাল আন্দোলন দাবি করে, ইসরাইল কর্তৃক লাগাতার এই অসংগতিপূর্ণ ও অপেশাদারি হামলার একটি নিরপেক্ষ ও আন্তর্জাতিক সুরাহার প্রয়োজন এবং হত্যা বা আজীবন পঙ্গু করে দেয়ার হীন মানসিকতায় কোমলমতি শিশুকিশোরদের লক্ষ্য করে গোলাবর্ষণ বন্ধ করার জন্য স্থায়ীভাবে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করা সময়ের দাবী।

উল্লেখ্য, ১৯৭৯ সালে জেনেভাতে গ্লোবাল আন্দোলন নামে এই সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এর লক্ষ্য নির্ধারিত হয়, শিশুদের সুরক্ষা প্রদান ও অধিকার আদায় করা।

এছাড়াও প্রতিষ্ঠানটির জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদে পরামর্শমূলক অবস্থান রয়েছে। এবং ইউনেস্কো ও ইউনিসেফের সাথে সমন্বয় করে বিভিন্ন সাহায্য অসহযোগিতা করে থাকে এই সংগঠনটি।


উৎস, টিআরটি আরবি