আমরা ওই ভারতকে গ্রহণ করব না যেখানে মানুষের সমতা নেই: ফারুক আবদুল্লাহ

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | আন্তর্জাতিক ডেস্ক


কাশ্মিরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ডা. ফারুক আবদুল্লাহ

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও ন্যাশনাল কনফারেন্সের প্রধান ডা. ফারুক আবদুল্লাহ বলেছেন, ‘আমরা সন্ত্রাসী নই, ভারত বিরোধীও নই, আমরা গান্ধীর ভারত চাই।’ কিন্তু আমরা ওই ভারতকে গ্রহণ করব না যেখানে মানুষের সমতা নেই।

ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লীতে গতকাল (বৃহস্পতিবার) বিরোধীদলীয় নেতাদের এক সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। বিজেপি বিরোধী ওই সম্মেলনে ফারুক আবদুল্লাহ তার ভাষণে বলেন, ‘আমরা সন্ত্রাসবাদী নই, ভারত বিরোধী নই, আমরা ভারত থেকে আলাদাও হতে চাই না। কিন্তু আমরা ওই ভারতকে গ্রহণ করব না যেখানে মানুষের সমতা নেই, তা ষে হিন্দু হোক, মুসলিম হোক, শিখ হোক বা খ্রিস্টান হোক না কেন। আমরা সেই ভারত চাই যার স্বপ্ন গান্ধীজি দেখেছিলেন।’

‘দেশের বৈচিত্রময় সংস্কৃতি রক্ষা’-শীর্ষক ওই সম্মেলনে সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি বলেন, ‘আমার নাম সীতারাম বলেই বলতে পারি, ওরা ধর্মের নামে যা করছে, তা ঠিক নয়।’

ভারতের প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধী তার ভাষণে বলেন, ‘বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ ভারতকে ‘সোনার পাখি’ হিসেবে দেখেন। ৭০/৮০ বছর আগে যেমন ইংরেজরা দেখত। সেভাবেই অমিত শাহ’রা দেশকে খাঁচা বানিয়ে কিছু শিল্পপতি বন্ধুকে সুবিধা দেন। দেশের সম্পদকে হাতিয়ার করে বন্ধুবান্ধব, পুঁজিপতিদের স্বজনপোষণ চলছে।’

রাহুল গান্ধী বলেন, ‘বিরোধীরা একজোট হয়ে সামনের তিন রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন ও লোকসভায় নির্বাচনে বিজেপিকে পরাজিত করবে। আমরা দেশকে বিজেপি-মুক্ত করব না। তাদের শেষ করব না। আমরা বুঝিয়ে দেবো ওদের আদর্শের থেকে আমাদের আদর্শ অনেক বেশি শক্তিশালী।’

এনসিপি নেতা তারিক আনওয়ার প্রধানমন্ত্রীর ‘সবকা সাথ সবকা বিকাশ’ (সকলের সঙ্গে সবার উন্নয়ন) স্লোগান বড় মিথ্যে ছাড়া আর কিছুই নয় বলে কটাক্ষ করেন।

সম্প্রতি বিজেপি থেকে তৃণমূলে যোগ দেয়া সাবেক এমপি চন্দন মিত্র বলেন, ‘বিজেপি’র মধ্যে অনেক কিছুই অত্যন্ত খারাপ। ধীরে ধীরে বিজেপি সম্পর্কে মানুষের মোহ দূর হয়ে যাচ্ছে।’

নয়াদিল্লিতে ওই সম্মেলনে কমপক্ষে ১৫টি বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এ প্রসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কোলকাতার সুরেন্দ্রনাথ উইমেন কলেজের সিনিয়র অধ্যাপিকা ড. আফরোজা খাতুন আজ (শুক্রবার) রেডিও তেহরানকে বলেন, ‘৩০/৩১ শতাংশ ভোট নিয়ে যে দল ক্ষমতায় এসেছে তারা অবশ্যই শক্তিশালী। কিন্তু যথেষ্ট শক্তিশালী নয়। যখনই এতগুলো দল একসঙ্গে বলছে যে আমরা সম্মিলিতভাবে তাদেরকে সরিয়ে দেবো অর্থাৎ ভোট ভাগ না হলে তা সম্ভব। রাজনৈতিক দলগুলো যদি আলাদা আলাদা ভাবে নির্বাচনে প্রার্থী না দিয়ে একজোট হয়ে একের বিরুদ্ধে এক প্রার্থী দেয় সেক্ষেত্রে বিজেপিকে ক্ষমতা থেকে সরানো কোনো সমস্যা নয়।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে দেশের সামনে সমূহ বিপদ, এই মুহূর্তে দেশকে রক্ষা করা প্রয়োজন, দেশের সম্পদ চলে যাচ্ছে মুষ্টিমেয় লোকেদের হাতে। দেশ কার্যত দেউলিয়া হয়ে পড়েছে।’

দেশকে বাঁচাতে হলে সব দলকে সম্মিলিতভাবে ভোটের লড়াইয়ে ভোটকে ভাগ না করে, একেবারে বিজেপি বিরোধী হয়ে মাঠে নামতে হবে তাহলে অবশ্যই তারা সফল হবে এবং এটাই কাম্য বলেও ড. আফরোজা খাতুন জানান।


উৎস, পার্সটুডে