এরদোগানের পাশে সাবেক প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ গুল

138856_192আধুনিক তুরস্ক প্রতিষ্ঠাতাদের মধ্যে অন্যতম দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ গুল। তুরস্কের রাজনৈতিক ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে তার অবদান অপরিসীম। ফলে রাজনীতি থেকে অবসর নিলেও এই সঙ্কটময় মুহূর্তে তিনি ক্ষমতাসীন ডেভলপমেন্ট এন্ড জাস্টিস পার্টি’র (একেপি) পাশে দাঁড়িয়েছেন।

সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান, প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম, তুর্কি পার্লামেন্টের স্পিকার ইসমাঈল করামান এবং সেনাবাহিনী প্রধান হুলুসি একারের সঙ্গে পৃথকভাবে বৈঠক করেছেন। তবে ওইসব বৈঠকের মূল এজেন্ডা জানা যায়নি। খবর সিএনএন তুর্কের।

বৈঠকের পর সাবেক প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ গুল বলেছেন, ১৫ জুলাই রাতে দেশকে এক অন্ধকারের দিকে নিয়ে যাওয়ার যে চেষ্টা করা হয়েছিল তা ব্যর্থ হওয়ায় তুরস্কে ফের পুরানো দিন ফিরেছে। তিনি আরো বলেন, বিপদগামি সেনাদের ষড়যন্ত্র, হত্যা, রাস্তায় সংঘর্ষ ও পার্লামেন্টে বোমাবর্ষণের ঘটনা তুরস্কের জন্য এক ‘অন্ধকার দাগ’। এমন কিছু ঘটতে পারে, কেউ তা কল্পনাও করতে পারেনি।

তিনিও এই ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত ফেতুল্লাহ গুলেনকেই দায়ি করেছেন।

তিনি গুলেনের ‘রাষ্ট্রের মধ্যে বিকল্প রাষ্ট্রব্যবস্থা’ এর কঠোর সমালোচনা করেন। তিনি আশা প্রকাশ করেছেন গুলেনের ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে তার দলের বন্ধুরা জনগণকে সঙ্গে নিয়ে তাদের উদ্দেশ্যে হাসিলে সফল হবেন। ষড়যন্ত্রকারীদের কোনো চক্রান্তই সফল হবে না।

এই ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থান ঘটনার পর তুর্কি পার্লামেন্টে প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে ‘জাতীয় ঐক্য’ গড়ার যে আলোচনা হয়েছে, সেটাকে স্বাগত জানিয়ে তিনি বলেন, দেশ ও জাতির স্বার্থে প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে এটা একটা গঠনমূলক আলোচনা হয়েছে।