সরকারি ‘সুবিধায়’ জাতীয় পার্টি ‘সুসংগঠিত’: চুন্নু

মুজিবুল হক চুন্নুমন্ত্রিসভায় থাকার পক্ষে ‘সরকারি সুবিধায়’ দলকে ‘সুসংগঠিত’ করার সুযোগ পাওয়ার যুক্তি দেখিয়েছেন জাতীয় পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মুজিবুল হক চুন্নু।

সংসদে বিরোধী দল হিসেবে নিজেদের প্রমাণে যখন দলটির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ মন্ত্রিত্ব ছাড়ার কথা বলছেন, তখন এই যুক্তি দেখালেন তিনি।

জাতীয় পার্টির যে তিনজন নেতা মন্ত্রিসভায় রয়েছেন, তার মধ্যে চুন্নু একজন। তিনি শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে রয়েছেন।

শনিবার নিজের জেলা কিশোরগঞ্জে গুরুদয়াল সরকারি কলেজ মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন জাতীয় পার্টির এই নেতা।

মন্ত্রিসভায় থাকার কারণে জাতীয় পার্টির অস্তিত্ব হুমকির মুখে পড়েছে কি না- এ প্রশ্নের জবাবে চুন্নু বলেন, “আমার মনে হয়, এতে করে আমরা সরকারি যে সুযোগ সুবিধা পাচ্ছি, তাতে দলকে সুসংগঠিত করা সম্ভব হচ্ছে।”

বিএনপিবিহীন দশম সংসদে প্রধান বিরোধী দলের আসনে বসার পাশাপাশি জাতীয় পার্টি সরকারেও যোগ দিলে তা নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা ওঠে।

মন্ত্রিসভা থেকে সরে আসার উপর জোর দিয়ে এরশাদ সম্প্রতি বলেন, “আমরা বিরোধী দলে আছি, না সরকারি দলে আছি, সেটা দেশের মানুষ বুঝতে পারছে না।”

তবে তার স্ত্রী দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা রওশন মন্ত্রিত্ব ছাড়ার পক্ষপাতি নন। তার ঘনিষ্ঠ নেতা হিসেবে পরিচিত চুন্নু।

মন্ত্রিসভা ছাড়ার কোনো সিদ্ধান্ত হয়েছে কি না- জানতে চাইলে এই প্রতিমন্ত্রী বলেন, “জাতীয় পার্টি এখনও মন্ত্রিসভা থেকে বেরিয়ে আসার দলীয় সিদ্ধান্ত নেয়নি।

“রোববার দলের প্রেসিডিয়াম সভা অনুষ্ঠিত হবে। দলের প্রেসিডিয়াম ও সংসদীয় বোর্ড যে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে, আমরা তা মেনে নেব। তবে আপাতত এ ধরনের কোনো সম্ভাবনা নেই।”