মার্চ ২৯, ২০১৭

সন্ত্রাসবাদ নিয়ে রাজনৈতিক খেলা বন্ধ করুন: হেফাজত

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশসন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের উত্থান এবং সরকার কর্তৃক খুতবা নিয়ন্ত্রণ করার প্রতিবাদে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় ঘোষিত কর্মসূচী বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ আগামী ২৯ জুলাই, জুমাবার, চট্টগ্রাম আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ উত্তর গেইট প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হবে।

এতে সভাপতিত্ব করবেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সিনিয়র নায়েবে আমির আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী প্রধান অতিথি থাকবেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব আল্লামা জুনাইয়েদ বাবুনগরী।

আগামী জুমাবারের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে চট্টগ্রাম মহানগর হেফাজতের অস্থায়ী কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও মহানগর সেক্রেটারি মাওলানা মঈনুদ্দীন রুহীর সভাপতিত্বে এক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত প্রস্তুতি সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী, উত্তর জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মীর ইদ্রিছ, মহানগর হেফাজত নেতা মাওলানা জয়নাল আবদীন কুতুবী, মাওলানা আবু তাহের ওসমানী, মাওলানা আ.ন.ম আহমদ উল্লাহ, মাওলানা আনোয়ার হোসেন রব্বানী, মাওলানা মুহাম্মদ ইউনুচ, মাওলানা জুনায়েদ জওহর, মাওলানা ইকবাল খলিল, মাওলানা জাকারিয়া, মাওলানা ওসমান কাশেমী, মাওলানা মাহামুদুল হাসান, মাওলানা রায়হান প্রমুখ।

প্রস্তুতি সভায় বক্তারা বলেন, বর্তমান বাংলাদেশে এক শ্রেনীর নাস্তিক্যবাদী অপশক্তি তাদের এজেন্টদের দিয়ে ইসলামের নাম ভাঙ্গিয়ে সন্ত্রাসী ও জঙ্গি হামলা করে দেশী-বিদেশী, সাধারণ নিরহ মানুষ হত্যা করে যাচ্ছে। দেশের সাধারণ মানুষের মনে আতংক সৃষ্টি করে তুলছে। তারা ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসবাদকে পুঁজি করে রাজনীতি করছে। ঐ অযুহাতে ইসলামী নেতৃবৃন্দ ও খতিবদের কন্ঠরোধের জন্য খুতবা নিয়ন্ত্রনের চেষ্টা হচ্ছে। পর্দার আড়াল থেকে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদকে টিকিয়ে রাখার চেষ্টা হচ্ছে। ইসলাম নিয়ে মিথ্যা ভিত্তিহীন অপপ্রচার চালাচ্ছে।

এই অবস্থায় দেশের আলেম সমাজ বসে থাকতে পারে না। তাই আগামী ২৯ তারিখ জুমাবার চট্টগ্রাম ও ঢাকায় দেশের সর্বজন শ্রদ্ধেয় আলেম হেফাজত ইসলাম বাংলাদেশের আমির শাইখুল ইসলাম আল্লামা শাহ আমদ শফির আহ্বানে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল অনুষ্ঠিত হবে।

বক্তারা দেশের তৌহিদি জনতার প্রতি আগামী জুমাবার চট্টগ্রাম আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ উত্তর গেইট প্রাঙ্গনে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ সফল করে ঈমানী দায়িত্ব পালন করার আহ্বান জানান।

প্রস্তুতি সভায় বক্তারা আরো বলেন, হেফাজত ইসলাম ও দেশের উলামায়ে কেরাম নাস্তিক বিরোধী আন্দোলনের পাশাপাশি জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে আমরণ লড়াই করে যাচ্ছে। তাদের স্ব-মুলে উৎখাত করার জন্য সামাজিক ভাবে জনসচেতনা বৃদ্ধি করে যাচ্ছে।
এমন অবস্থায় প্রশাসনের কিছু অতি উৎসাহী অফিসার দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে মসজিদের ইমাম, খতিব, ইসলামী নেতৃবৃন্দ ও সাধারণ মুসল্লিদের ধরে নিয়ে যাচ্ছে। আবার অনেকের নামও প্রকাশ করছে না, গুম করে ফেলা হচ্ছে। এ ভাবে নিরীহ আলেম উলামা ও সাধারণ মুসল্লিদেরকে হয়রানি করলে জঙ্গিবাদ বন্ধ হবে না বরং দেশের পরিস্থিতি আরো ঘোলাঠে হবে। যা দেশ ও দেশের মানুষের জন্য কখনো কাম্য নয়। সরকার যদি মনে প্রানে জঙ্গিবাদ বন্ধ করতে চায় তাহলে সব রাজনৈতিক দল ও দেশের উলামায়ে কেরামের সাথে সমন্বয় করে জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।

বক্তরা দেশের সকল রাজনৈতিক দলের প্রতি জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ নিয়ে রাজনৈতিক খেলা বন্ধ করে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার আহ্বান জানান।