ইরান আমাদের দ্বিতীয় বিষফোঁড়া | মুফতী হারুন ইজহার

ইরান আমাদের দ্বিতীয় বিষফোঁড়া | মুফতী হারুন ইজহার

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | সোস্যাল মিডিয়া ডেস্ক


মুফতী হারুন ইজহার চৌধুরী | রাষ্ট্র ও সমাজ চিন্তক


ইরাক থেকে শাম, চলছে পারসিয়ান- ইরানী সাফাভীদের রক্তের মহড়া। ইরান আমাদের দ্বিতীয় বিষফোঁড়া।

এক


ঈদুল আজহার রাতে সাদ্দামকে হত্যা করা হয়েছিল, এ আলোচনা এখন আর বেশি একটা সরব নয়। কিন্তু বিষয়টার তাৎপর্য শেষ হওয়ার মত নয়।

সাদ্দাম কে? তিনি ইরাকের ফিরআউন ছিলেন, যার উস্তাদ ছিলেন আরব জাতীয়তাবাদ ও আরব কমিউনিজমের প্রবক্তা হিজবুল বা’স বা বাথ পার্টির জনক সেই মিশেল আফলাক।

কিন্তু সাদ্দাম কে? তিনি সেই ফিরআউন ছিলেন, প্রায় সকল আরব সুন্নি উলামাদের মতে জীবনের শেষ বৈকল্যে যার তাওবার সৌভাগ্য হয়েছিল।

কারা সাদ্দামকে মেরেছিল? নিশ্চয় ভিডিওতে আপনি মুখোশ পরা জল্লাদদের কন্ঠ শুনেছেন। এরা কট্টর শিয়া ছিল।
কি চমৎকার! বিচারক আমেরিকাপন্থী আর জল্লাদ ইরানপন্থী।
ইরানের বাহ্যিক ধর্মীয় আলখেল্লা তার জাতীয়তাবাদী পারসিয়ান সাংস্কৃতিক চেহারাকে আমাদের বহু উচ্চশিক্ষিত ইসলামপন্থীর চোখে আড়াল করে রেখেছে।
সাদ্দামকে আমেরিকা মেরেছে ইরাক নেতৃত্বশূন্য করার অভিপ্রায়ে, সেটাতে ইসলামের ক্ষতি বেশি হয়তো নেই, কিন্তু সাদ্দামকে ইরান মেরেছে সুন্নিবিদ্বেষের মনস্তত্ত্ব থেকে। এটা কিন্তু ভয়ঙ্কর সিম্পটম।


দুই


সিরিয়ায় সর্বশেষ স্বাধীনতাকামী আহলে সুন্নাহ্’র ঘাঁটি ইদলিবের পতন ঘটতে যাচ্ছে! আল্লাহ সহায়।

সিরিয়ায় সত্যবাদী,শুদ্ধ মানহাজের প্রতিরোধকামী মুসলমানদের দূর্গগুলোর ধারাবাহিক পতন ঘটছে ইরানী শিয়াইজমের মদদে,রাশিয়ার বর্বরতায়, আমেরিকার নীরব সমর্থনে, ইসরাঈলের নিপুণ চক্রান্তে,তুরস্কের জাতীয়তাবাদী পরিকল্পনায়।

ইসরাঈলের পর ইরান মুসলিম উম্মাহর দ্বিতীয় বিষফোঁড়া।


ফেসবুক থেকে


Notice: Undefined index: email in /home/insaf24cp/public_html/wp-content/plugins/simple-social-share/simple-social-share.php on line 74