মার্চ ২৯, ২০১৭

সন্ত্রাবাদকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে মোকাবিলা করতে হবে: আল্লামা বাবুনগরী

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

আল্লামা-হাফেজ-জুনাইদ-বাবুনগরী-4হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী এক বিবৃতিতে বলেছেন, সাম্প্রতিককালে বিশ্বব্যাপী যেসব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, হামলা, নাশকতা ও হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে তাতে বিশ্ববাসী শঙ্কিত ও আতঙ্কিত। সারাবিশ্বেই সন্ত্রাসবাদ রাষ্ট্রযন্ত্রের জন্য অনেক বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ইহুদী-খ্রিস্টান সা¤্রাজ্যবাদী ইসলামবিদ্বেষী গোষ্ঠী পরিচালিত সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে জাতি-ধর্ম ও দলমত নির্বিশেষে সূদৃঢ় ঐক্য গড়ে তোলার কোন বিকল্প নেই।

হেফাজত মহাসচিব বলেন, এসব হামলা ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের অংশ। যে কোন মূল্যে সকল ষড়যন্ত্র রুখে দিয়ে ইসলাম ও মুসলিম মিল্লাতকে বিপর্যয়ের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য মুসলিম বিশ্বের ক্ষমতাসীনদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে মুকাবিলা করতে হবে।

তিনি বলেন, পৃথিবীর কোন ধর্মই সন্ত্রাসবাদকে পছন্দ করে না। ইসলামের সাথে এর কোন সম্পর্ক নেই। ইসলাম কোন উগ্রতা ও সহিংসতাকে সমর্থন করে না। যারা এসব হামলার সাথে জড়িত তারা ইসলাম, মুসলমান ও বিশ্বমানবতার শত্রু। ইসলামের সাথে সন্ত্রাসবাদের কোনো সম্পর্ক নেই। ইসলাম সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষণা করেছে।

তিনি বলেন, আমাদের মাতৃভূমি বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে ধর্মহীন করার কারণে কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে মুসলমানদের সন্তানরা ধর্মের সঠিক ব্যাখ্যা না জানার ফলে বিপদগামী হচ্ছে। দেশে সন্ত্রাসী কর্মকা-, গুপ্তহত্যা, গুম, খুন, ও রাজনৈতিক জিঘাংসা ইত্যাদি পরিস্থিতিতে নাগরিক হিসেবে আমরা সকলেই আতঙ্কিত ও উদ্বিগ্ন। তাই, শিক্ষার সর্বস্তরে ইসলামী শিক্ষা বাধ্যতামূলক করতে হবে।

হেফাজতে মহাসচিব আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী ইফা প্রেরিত জুমার খুতবা অনুসরন না করায় দেশের কয়েকস্থানে ইমাম-খতিবদের গ্রেফতার ও নির্যাতনের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে দেশের আলেম-ওলামা ইমাম-খতিবদের উপর জুলুম নির্যাতন বন্ধের আহ্বান জানান। তিনি অবিলম্বে গ্রেফতারকৃত ইমাম-খতিবদের নি:শর্ত মুক্তি দাবী করে বলেন হত্যা, সন্ত্রাস, উগ্রবাদ প্রতিরোধে আলেম-ওলামা, ইমাম-খতিবরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছেন। মসজিদের মিম্বর থেকে সবসময় সত্য, ন্যায়, নৈতিকতা, শান্তি ও মানবতার বাণী প্রচার করা হয়। ইসলামের সাথে ঘৃনিত উগ্রবাদ তথা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের কোন সম্পর্ক নেই। কিন্তু আজ সরকার চলমান ন্যাক্কারজনক সন্ত্রাসী হামলার ইস্যুকে কেন্দ্র করে মসজিদ ও জুমার খুতবার উপর নিয়ন্ত্রন আরোপের চেষ্টা করছে। এদেশের ধর্মপ্রাণ জনতা ধর্মের উপর কোনরূপ নিয়ন্ত্রন, নজরদারী কোনভাবেই মেনে নিবে না।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী সংসদে বলেছেন সরকার জুমার খুতবা নিয়ন্ত্রণ করবে না। তাহলে যেসব ইমাম ও খতিবকে ইফার খুতবা না পড়ার কারণে গ্রেফতার করা হয়েছে তাদের অবিলম্বে মুক্তি দিয়ে তা প্রমাণ করুন।