ঘিয়ে ভাজা ইট দিয়ে তৈরি কলি-দলি আমীন মসজিদ

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | জামিল আহমদ



রংপুর জেলার গংগাচড়া উপজেলার বড়বিল ইউনিয়নের মন্থনার হাট থেকে একটু এগিয়ে গেলেই দেখা যায় ব্রিটিশ স্থাপত্যের ঐতিহাসিক স্মারক হিসেবে দাঁড়িয়ে আছে বড়বিল কলি দলি আমীন জামে মসজিদ।

১৮৪১ সালে ব্রিটিশ শাসনামলে মসজিদটি নির্মিত হয়। ১৭৫ বছর আগে নির্মিত দৃষ্টিনন্দন এই মসজিদটি দেখতে প্রতিদিনই দূর-দূরান্ত থেকে অসংখ্য দেশি-বিদেশি পর্যটক আসে। অসাধরন কারুকার্যে নির্মিত এ মসজিদটি ২০১১ সালে পুণঃনির্মাণ করা হলেও এর সামনে গম্বুজের অংশটি আগের মতই রয়েছে ।

৫২ ফিট দৈর্ঘ্য ও ২১ ফিট প্রস্থ বিশিষ্ট এ মসজিদের ছাদে রয়েছে ৩টি গম্বুজ। যার মাথায় রয়েছে ৪ ফিট উঁচু নকশা। ভেতরের প্রতিটি ইটে ভিন্ন আঙ্গিকের নকশা। এছাড়া আজান দেয়ার জন্য রয়েছে একটি চুড়া আকৃতির গম্বুজ এবং মসজিদের চার কোনায় ৪টি ছোট গম্বুজ এবং পূর্ব-পশ্চিমের মধ্যখানে ছোট আকারের ৪টি গম্বুজ আছে।

মসজিদটির ভেতরের দেয়ালে নির্মিত কারুকাজ ও নকশাগুলোর বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, এতগুলো কাজ বা নকশা, কিন্ত কোন কাজ বা নকশার সাথে কোন নকশার মিল খুঁজে পাওয়া যায়নি। বর্তমানে মসজিদটিতে মুসল্লিদের নামাজের স্থান সংকুলান না হওয়ায় এর পাশ ঘেঁষে ৩ তলা ফাউন্ডেশন দিয়ে আয়তন বৃদ্ধি করা হয়েছে।

স্থানীয়দের দাবি, কলি আমীন ও দলি আমীন নামে দুই ভাইয়ের প্রচেষ্টায় মসজিদটি নির্মিত হয়। এ কারণে ওই দুজনের নামেই মসজিদের নাম। মসজিদটি নির্মাণে ঘিয়ে ভাজা ইট ব্যবহার করা হয়েছিল। অলৌকিক ক্ষমতা সম্পন্ন ১৩ জন রাজমিস্ত্রি এই মসজিদটি নির্মাণ করেছেন। যাদের সবাই ছিল অচেনা মানুষ। বিস্ময়কর এই মসজিদটি নির্মাণকালে ইট ভাজতে ব্যবহৃত বড় আকৃতির কড়াইটি এখনো কলি আমীন ও দলি আমীনের বংশ মিয়া পরিবারের কাছে ঐতিহ্য হিসেবে সংরক্ষিত রয়েছে।


Notice: Undefined index: email in /home/insaf24cp/public_html/wp-content/plugins/simple-social-share/simple-social-share.php on line 74