ফের বাংলাদেশ নিয়ে মিথ্যাচার করলেন সুচি, সাফাই গাইলেন দুই সাংবাদিকদের কারাদণ্ডের পক্ষে

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | আন্তর্জাতিক ডেস্ক


রোহিঙ্গা মুসলিম গণহত্যার খলনায়িকা মিয়ানমারের ডি ফ্যাক্টো নেত্রী অং সান সু চি ফের বাংলাদেশ নিয়ে মিথ্যাচার করেছেন।

সু চি বলেন, “নভেম্বরে বাংলাদেশের সাথে সই হওয়া সমঝোতা স্মারক অনুসারে ২৩ জানুয়ারি থেকে প্রত্যাবাসন শুরু হওয়ার কথা। কিন্তু, বাংলাদেশ সেসময় জানিয়েছে- তারা পুরোপুরি প্রস্তুত নয়। যেহেতু এই প্রক্রিয়ার সাথে দু’দেশ সম্পৃক্ত; সুতরাং আমরা এককভাবে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারি না। কারণ, সংখ্যালঘু মুসলিমদের বাংলাদেশ থেকে আগে ফেরার ইচ্ছা থাকতে হবে। আমরা প্রতিবেশী দেশে ঢুকে, তাদের নিয়ে আসতে পারি না।”

বৃহস্পতিবার ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে আসিয়ানের ওয়ার্ল্ড ইকনোমিক ফোরামে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

তবে রোহিঙ্গা সঙ্কটের এক বছর পেরিয়ে যাওয়ার পর এ বিষয়টি নিয়ে প্রথমবারের মতো ইতিবাচক কথা বলেছেন তিনি।

সুচি বলেন, “কিছু উপায় অবশ্যই ছিল যার মাধ্যমে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি আরও ভালোভাবে সামলানো যেত।”

তিনি বলেন, “রাখাইন সংকটের ব্যাপারে আন্তর্জাতিক উদ্বেগ ছিলো, এখনও রয়েছে। সেনাবাহিনী কিভাবে পরিস্থিতি মোকাবেলা করেছে- এই প্রশ্নে না যেয়ে যদি জিজ্ঞেস করেন, সরকারের ভূমিকা কি ছিলো? তাহলে বলবো, গণতান্ত্রিক সরকার মাত্র ৭৫ শতাংশ ক্ষমতা ব্যবহারের সুযোগ পেয়েছিলো। স্বীকার করে নিচ্ছি, সহিংস পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে শতভাগ দেয়াটা উচিৎ ছিলো প্রশাসনের।”

এদিকে, বার্তা সংস্থা রয়টার্সের দুই সাংবাদিকদের কারাদন্ডের পক্ষে সাইফাই গেয়েছেন তিনি।

তিনি বলেন, “ওয়া লোন ও কিয়াও সোয়ে ও আইন ভেঙেছেন আর এর সঙ্গে মত প্রকাশের স্বাধীনতার কোনও সম্পর্ক নেই।”

মিয়ানমারের নেত্রী দাবি করেন, “এই মামলা আইনের শাসনকে সমুন্নত করেছে।”