তুরস্কের যে বাজারে দোয়ার মাধ্যমে শুরু হয় বেচাকেনা

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | বেলায়েত হুসাইন



তৎকালীন ‘তুরকিস্তান’ বা আজকের ‘তুরস্ক’ পৃথিবীর সবশেষ ইসলামি শাসনব্যবস্থা তথা উসমানী খেলাফতের প্রাণকেন্দ্র হিসেবে ইতিহাসের একটি আলোচিত ও পরিচিত ভূখণ্ড।

ঐতিহাসিকদের কাছে এখানের সবকিছুই বেশ গুরুত্ব রাখে। প্রাচীনযুগের মসজিদ,সাহাবায়ে কেরামের মাক্ববারা, এবং খলিফাদের হাতে নির্মিত ইসলামি ইতিহাসের আরো বহু নিদর্শন তুরস্কের মূল আকর্ষণ।

বইয়ের পাতা উল্টালে আরো একটি বিচিত্র স্থানের নাম সামনে উঠে আসে,যে জায়গাটি আজও তার জন্ম বৈশিষ্ট্যকে লালন করে বেঁচে আছে। এটি হলো উসমানী যুগে গোড়াপত্তন হওয়া ‘সালিমিইয়্যা’ নামের একটি প্রাচীনতম বাজার।

তুর্কি শহর আরদিনাহ্’তে প্রতিদিন সকালে বসে এই বাজার। দিনের শুরুতেই পৃথক পৃথক কন্ঠে কানে বেজে উঠে আল্লাহর নাম এবং মাসনূন দোয়াসমূহ। সালিমিইয়্যা বাজারে কেনাবেচার আগে সবাই এভাবে দোয়া পড়ে নেয়। এটা যেন অলিখিত ঐতিহাসিক একটি নিয়ম। স্বেচ্ছায় সবার মুখের এরকম গুঞ্জরন সত্যিই শুনতে অসাধারণ লাগে।
এই বাজার তুর্কিদের নিকট খুব প্রিয়। এছাড়াও তুরস্কে পর্যটনের উদ্দেশ্যে আসা অনেক বিদেশিরাও এখানে বেড়াতে আসেন।

দেশের আর দশটা বাজার থেকে সালিমিইয়্যা ভিন্ন। শত ব্যস্ততার মাঝেও ব্যবসায়ীদের সততায় মুগ্ধ হয় ভীনদেশী কারবারিরা।
তাছাড়া প্রাচীন সৌন্দর্যে অতুলনীয় সালিমিইয়্যা। উসমানী খেলাফতব্যবস্থা শতবছর আগে ধ্বসে পড়লেও ঐ জামানার স্থাপত্য সৌকর্য ও চাকচিক্যের নিরব সাক্ষী হয়ে আজও টিকে রয়েছে সালিমিইয়্যা বাজার।

ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ এই বাজারের অবস্থান তুরস্কের বিখ্যাত সালিমিইয়্যা বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্নে। উসমানী খেলাফতকাল ১৫৬৯-১৫৭৫ সালে নির্মিত হওয়া এই শিক্ষাঙ্গনটিও ঐতিহাসিকদের নিকট অনেক গুরুত্বপূর্ণ।
যেন প্রাচীন স্থাপত্যকর্মের নান্দনিক এক উপস্থাপন। ১৫৯০ সাল সুলতান তৃতীয় মুরাদ(১৫৪৬-১৫৯৫)এর শাসনামলে সূচনা হয় সালিমিইয়্যা বাজারের।

মূলত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে অল্প পরিসরে গোড়াপত্তন হওয়া এই বাজার পরবর্তীতে অনেক জায়গা জুড়ে ছড়িয়ে পড়ে এবং পৃথিবীব্যাপী প্রসিদ্ধি লাভ করতে সক্ষম হয়।

তবে এই প্রসিদ্ধি আর শুহরতের নেপথ্যের কারণ হিসেবে মনে করা হয়, সালিমিয়্যা বাজারের প্রতিদিন সকালে জড়ো হওয়া ক্রেতাবিক্রেতা-সকলেই দুহাত তুলে মোনাজাত করেন এবং দোয়া পড়েন মৃদু আওয়াজে তবে খুব সুমধুর তানে-যা উপস্থিত সবাইকে বিমোহিত, বিমুগ্ধ করে।




-বালাদুন নিউজ ও তুর্কি পোস্ট অবলম্বনে