মুসলমানদের আটক নয়, প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে, দাবি চীনের

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | আন্তর্জাতিক ডেস্ক


চীনের জিংজিয়াংপ্রদেশে মুসলমানদের ওপর কোনো নির্যাতন চালানো হচ্ছে না; বরং উগ্রপন্থার বিস্তার এড়াতে তাদের প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন দেশটির এক কর্মকর্তা।

বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ইউরোপ উগ্রপন্থার সমস্যা মোকবেলায় ব্যর্থ হয়েছে।

নৃতাত্ত্বিক উইঘুর ও অন্য মুসলমানদের আটকে রাখার প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পর চীনের বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী সমালোচনার ঝড় ওঠে। সেখানে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে চীনা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার কথাও বিবেচনা করছে ট্রাম্প প্রশাসন।

চীনের স্টেট কাউন্সিলের তথ্য কার্যালয়ের মানবাধিকার ব্যুরোর প্রচারবিষয়ক পরিচালক লি জিওয়াজন বলেন, পেশাগত প্রশিক্ষণ ও শিক্ষাকেন্দ্রে যা করা হচ্ছে, তা কোনো নির্যাতন কর্মকাণ্ড নয়।

তিনি বলেন, ইসলামিক কিংবা ধর্মীয় উগ্রপন্থা মোকাবেলায় আপনি যদি এটিকে সবচেয়ে ভালো উপায় বলে মনে নাও করেন, তবে এটিই প্রয়োজনীয় ও সহজ পথ। কারণ পশ্চিমারা উগ্রবাদ মোকাবেলায় ব্যর্থ হয়েছে।

‘বেলজিয়াম, প্যারিস ও ইউরোপীয় দেশগুলোর দিকে তাকান, তারা ব্যর্থ হয়েছে। চীনের শিক্ষাকেন্দ্র কোনো কারাগার নয়। সত্যি কথা হচ্ছে- এটি এক ধরনের ভোকেশনাল প্রশিক্ষণ।’

চীনের ওই কর্মকর্তার মতে, আপনার শিশু যেমন ভোকেশনাল স্কুলে গিয়ে দক্ষতা অর্জন করে ভালো চাকরি পায়, এখানে বিষয়টি তেমন ঘটছে। এখানে অল্প সময়ের জন্য সেই প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। কেউ পাঁচ দিনের, কেউ সাত দিনের কেউ বা ১০ দিনের প্রশিক্ষণ নিয়ে চলে যাচ্ছেন।