বিশেষ ব্যবস্থায়ও পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ পেলো না তরিকুল

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


সরকারি চাকরি বিদ্যমান কোটা নিয়ে সম্প্রতি সারাদেশে কোটা সংস্কার আন্দোলন চলাকালীন সময় রাজশাহীতে ছাত্রলীগের হাতুড়িপেটায় আহত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থী তরিকুল ইসলামের মাস্টার্স চূড়ান্ত পর্বের পরীক্ষা শুরু হলে বিশেষ ব্যবস্থায়ও পরীক্ষা দেওয়া হচ্ছে না তার।

আজ ২৬ সেপ্টেম্বর বুধবার মাস্টার্স চূড়ান্ত পর্বের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। সুস্থ না হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্রে বিশেষ ব্যবস্থায় পরীক্ষা দেওয়ার জন্য আবেদন করেছিলেন তিনি। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তা অনুমোদন করেনি।

পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক মো. বাবুল ইসলাম বলেন, প্রতিদিন অনেক সিক বেডের আবেদন আসে। তরিকুল আবেদন করেছিল কি না, না দেখে বলতে পারব না।

তরিকুল ইসলাম রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থী। ছাত্রলীগের হামলায় তাঁর ডান পা ভেঙে গিয়েছিল। কিন্তু হামলার প্রায় ৩ মাস পর এখনো পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ওঠেননি। গত ২ জুলাই পুলিশের উপস্থিতিতে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের পতাকা মিছিলে হামলা চালায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ। ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের হাতুড়িপেটায় তরিকুলের পা ভেঙে যায়।

তরিকুল জানান, অসুস্থ থাকা সত্ত্বেও গত সোমবার নিজে চিকিৎসাকেন্দ্রে গিয়ে সিক বেডে পরীক্ষা দেওয়ার আবেদন করি। আমার অবস্থা বিবেচনা করে এবং বর্তমান অবস্থা দেখেচিকিৎসকেরা আবেদন অনুমোদন করেন। এরপর আবেদনটি পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ দপ্তরে জমা দেন। সেখান থেকে আবেদনটি উপাচার্য দপ্তরে যায়। গতকাল মঙ্গলবার জানতে পারেন উপাচার্য তাঁর আবেদনটি গ্রহণ করেননি। ফলে নিজ বিভাগে বসেই অন্যদের মতো পরীক্ষা দিতে হবে। আমি বেশিক্ষণ সময় বসে থাকতে পারি না। পা দিয়ে মাঝে মধ্যে পুঁজ বের হয়। এ অবস্থায় টানা ৪ ঘণ্টা বেঞ্চে বসে কীভাবে পরীক্ষা দেব?

এ ব্যাপারে জানতে উপাচার্য এম আবদুস সোবহানের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে অন্য একজন ফোন ধরে জানান, উপাচার্য সভায়, তিনি কথা বলতে পারবেন না।