জানুয়ারি ১৭, ২০১৭

পায়রা বন্দরের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

শেখ হাসিনা ওয়াজেদ (10)পায়রা সমুদ্রবন্দরের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার (১৩ আগস্ট) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পায়রা বন্দরের বহির্নোঙ্গর থেকে পণ্য খালাসের মাধ্যমে অপারেশনাল কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন তিনি।

এর আগে পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের আওতাধীন ছয়টি উপজেলা শতভাগ বিদ্যুতায়ন এবং  তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদফতরের বাস্তবায়নাধীন সারা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন প্রকল্পের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

একই অনুষ্ঠানে এরপর  উদ্বোধন করবেন আটলেনে উন্নীত যাত্রাবাড়ী-কাঁচপুর মহাসড়ক, যাত্রাবাড়ী ইন্টারসেকশন থেকে (ইকুরিয়া-বাবুবাজার লিংকসহ) মাওয়া এবং পাচ্চর-ভাঙ্গা মহাসড়ক উভয়দিকে ধীরগতির যানবাহনের জন্য পৃথক সার্ভিস লেনসহ ৪ লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্পের (পদ্মাসেতু লিংক রোড) নির্মাণ কাজ।

অনুষ্ঠানে তিনি বিদ‌্যুৎ উৎপাদনের ব‌্যয়ের দিকটি তুলে ধরে সবার উদ্দেশে বলেন, আশা করি বিদ্যুৎ ব্যবহারে সবাই একটু মিতব্যয়ী হবেন, সাশ্রয়ী হবেন। তাতে বিলও আপনাকে কম দিতে হবে।

২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশের সব মানুষের কাছে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিতে সরকারের লক্ষ্য অর্জনের প্রচেষ্টার অংশ হিসাবে ছয়টি উপজেলার শতভাগ মানুষ বিদ্যুৎ পেলেন।

পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের অধীনে ৫৩৫ কোটি টাকা ব্যয়ে শতভাগ মানুষকে বিদ্যুৎ সুবিধা দেওয়ার এই কাজ হয়েছে, যার গ্রাহক সংখ্যা ২ লাখ ৩৮ হাজার ৫০ জন।

বিদ‌্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ আশা করছেন, ২০১৮ সালের মধ্যেই ৯৫ শতাংশ জায়গায় বিদ্যুতায়ন করতে পারবেন তারা।

পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের মাধ‌্যমে প্রতি মাসে প্রায় সাড়ে তিন লাখ গ্রাহককে বিদ্যুৎ দেওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

নসরুল আশা করছেন, ২০১৮ সালের ডিসেম্বরের মধ‌্যে দেশের মোট ৪৬৫ উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন হয়ে যাবে।

২০২১ সালে ২৪ হাজার মেগাওয়াট উৎপাদনের লক্ষ‌্য নিয়ে কাজ চালিয়ে ২০১৮ সালের মধ্যে বিদ‌্যুৎ উৎপাদন ১৬-১৭ হাজার মেগাওয়াট ছাড়ানোর আশাও করছেন তিনি।