বিএনপির কমিটি, পাপিয়ার কান্না এবং হলুদ সাংবাদিকতা !

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম |

সৈয়দা আসিফা আশরাফি পাপিয়াবিএনপির নতুন কমিটি ঘোষিত হবার পর থেকেই দলটির ত্যাগী এবং আলোচিত নেত্রী সৈয়দা আশিফা আশরাফী পাপিয়াকে নিয়ে ফেইসবুকে সমালোচনার ঝড় ওঠে। কয়েকটি অনলাইন পোর্টাল নিউজ প্রকাশ করে যে, সংক্ষুব্দ পাপিয়া বিএনপিকে বেইমান ও মোনাফেকের দল হিসেবে গালাগাল দিয়েছেন। খবরের সূত্র হিসেবে তারা পাপিয়ার একটি ফেইসবুক স্টাটাসকে ব্যবহার করার চেষ্টা করছেন!

৯বম সংসদে পাপিয়া আমার সহকর্মী ছিলেন। বিভিন্ন টকশো, সভা সমিতি এবং রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে একত্রে বার বার যোগদান করার ফলে তার সঙ্গে আমার একটি ব্যক্তিগত বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে যা পরবর্তীতে পারিবারিক সম্পর্কে পরিনত হয়। আমি যখন জেলে ছিলাম সে তখন আমার স্ত্রী -পুত্র- কন্যার সঙ্গে নিয়মিত কথাবার্তা বলে তাদেরকে সান্তনা দিতেন। অনুরূপভাবে, সে যখন জেলে ছিলো সেই সময়ে আমিও তার স্বামীর সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতাম।

সম্পর্কের সূত্র ধরেই পাপিয়াকে ফোন করে জিজ্ঞাসা করলাম- এসব কি শুনছি ? আমার ফোন পেয়ে সে রীতিমতো কান্না শুরু করলো। সে জানালো যে, তার কোন ফেইসবুক এ্যাকাউন্ট নেই। তাছাড়া কোন সাংবাদিকের সঙ্গেও তার কোন কথাবার্তা হয়নি। অথচ তাঁকে জড়িয়ে বিএনপি বিরোধীরা নানা অকথা-কুকথা ফেইসবুকের মাধ্যমে প্রচার করে তাকে এবং দলকে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করছে।

ফেইসবুকে আমার সক্রিয়তার কারনে পাপিয়া তার বিরুদ্ধে প্রচারিত অপবাদের প্রতিকার বিষয়ে জানতে চাইলে আমি তাকে আইসিটি অ্যাক্টে মামলা করার পরামর্শ দিলাম এবং বললাম- তার যদি জেনুইন একটি ফেইসবুক আইডি থাকতো তাহলে হয়তো এই বিপদে সে নাও পড়তে পারতো। কারন একমাত্র প্রযুক্তি দিয়েই অন্য প্রযুক্তিকে মোকাবেলা করা সম্ভব!


ফেইসবুক থেকে