রাজশাহীতে শ্রমিক ফেডারেশনের বিক্ষোভ-সমাবেশ

সরকারি পাটকল বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার ও রাষ্ট্রায়াত্ব শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলোকে রক্ষার দাবিতে রাজশাহীতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন।

বুধবার (০১ জুলাই) বেলা ১১টায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে রাজশাহী জেলা শ্রমিক ফেডারেশন নগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে এ কর্মসূচি পালন করে।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, পাট এবং পাটকল বাংলাদেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্যের সঙ্গে যুক্ত। স্বাধীনতার পর দেশে মোট ৭৭টি পাটকল ছিল। গত ৪৯ বছরে শাসক শ্রেণির দুর্নীতি ও বিশ্বব্যাংক-আইএমএফের পরামর্শে গৃহীত ভুলনীতির ফলে এশিয়ার বৃহত্তম পাটকল আদমজীসহ প্রায় ৫০টির বেশি পাটকল বন্ধ হয়ে গেছে। অথচ সারা দুনিয়ায় এখন পলিথিনসহ কেমিক্যাল দ্রব্য বর্জনের ফলে পাট ও পাটজাত দ্রব্যের ব্যবহার ও চাহিদা বাড়ছে। বাংলাদেশে অবস্থিত পাটকলগুলো বন্ধের ষড়যন্ত্র হচ্ছে।

তারা বলেন, সরকার পাটকল বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়ে ঠিক করেনি। এতে হাজার হাজার শ্রমিক ও তাদের পরিবার বেকার হয়ে যাবে। শ্রমিকদের জীবন অচল করে অর্থনীতি সচল করা সম্ভব না। ৬ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে পাটকল বন্ধ না করে ১ হাজার ২০০ কোটি টাকা দিয়ে আধুনিকায়ন করার দাবি জানান তারা।

বিক্ষোভ-সমাবেশে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য দেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু। সভাপতিত্ব করেন জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের জেলার সভাপতি ফেরদৌস জামিল টুটুল।

এ বিক্ষোভ-সমাবেশে অন্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য দেন- জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের জেলার সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ, মহানগর ওয়াকার্স পার্টির সম্পাদকমণ্ডলির সদস্য আবদুল মতিন, মনির উদ্দিন পান্না, মনিরুজ্জামান মনির, মহানগর ছাত্রমৈত্রীর সভাপতি জুয়েল খান প্রমুখ।