হিন্দু নারীকে ধর্ষণের দায়ে আওয়ামী লীগ নেতা সাময়িক বহিষ্কার

মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী সদস্য সাকিলুর রহমান তালুকদার সোহাগকে দল থেকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

শনিবার রাতে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে স্বাক্ষরিত এধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী সদস্য সাকিলুর রহমান তালুকদার সোহাগকে দল থেকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

শনিবার রাতে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য সাকিলুর রহমান তালুকদার সোহাগের বিরুদ্ধে এক হিন্দু নারীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উত্থাপিত হয়। সেই নারী বাদী হয়ে গত ১৮ মার্চ ঢাকার ভাটারা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন। ওই মামলায় সাকিলুর রহমান তালুকদার সোহাগ গ্রেফতার হয়ে কারাগারে রয়েছেন। এতে দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হওয়ায় তাকে দলীয় পদ থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে বলেন, “সাকিলুর রহমান সোহাগ তালুকদারের এক হিন্দু তরুণীকে শুধু ধর্ষণই করেননি; তার বিরুদ্ধে দলের শৃংখলা ভঙ্গের আরো অভিযোগ রয়েছে। তাই তাকে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে; যাতে স্থায়ীভাবে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।”ক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে।