ইউরোপ-আমেরিকার চেয়ে আমরা ভালো আছি: ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, করোনা সংক্রমণে ইউরোপ আমেরিকার তুলনায় আমরা এখনো ভালো অবস্থানে রয়েছি।

শুক্রবার দুপুরে সংসদ ভবন এলাকায় নিজ বাসভবনে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

কাদের বলেন, ‘আজকের এই দুর্যোগে জাতি হিসেবে আমাদের বিভক্তি কোনোভাবেই কাম্য নয়। এ সময় বিভাজনের অনিবার্য পরিণতি ভাইরাসের ভয়ঙ্কর রূপ মোকবিলা করা যাবে না। জেনে শুনে আমরা যেনো এই মারাত্মক ভুলের ফাঁদে পা না দেই।’

তিনি বলেন, ‘মনে রাখতে হবে এই লড়াই আমাদের সবার বাঁচার লড়াই। এই লড়াইয়ে নিজে বাঁচতে হবে অপরকেও বাঁচাতে হবে। পরস্পর পরস্পরকে সুরক্ষা না দিলে আমাদের নিজেদের সুরক্ষাই হুমকির মুখে পড়বে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘করোনা সংক্রমণে বিশ্বের দু’শ দশটি দেশ আজ আক্রান্ত। এর মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ৭৪ তম। ইউরোপ-আমেরিকার তুলনায় আমরা এখনো ভালো অবস্থানে রয়েছি। ঐক্যবদ্ধভাবে করোনা মোকাবিলা করতে পারলে এই কালো মেঘ অচিরেই কেটে যাবে ইনশাল্লাহ।’

করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী ঘরে ঘরে সচেতনতার দুর্গ গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমরা যদি সকলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি, ঘরে থাকি; তাহলে ইনশাল্লাহ জয় আমাদের হবেই।’

কাদের বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ অনুযায়ী ইউনিয়ন পর্যন্ত ত্রাণ কমিটি গঠন করে প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে সম্পূর্ণ স্বচ্ছতার সঙ্গে ত্রাণ বিতরণ প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণের জন্য আওয়ামী লীগের তৃণমূল পর্যায়ের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। ত্রাণ বিতরণে কোনোরকম অনিয়ম দুর্নীতি সহ্য করা হবে না। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর সরকারের কঠোর অবস্থানের কথা ইতোমধ্যে স্পষ্টভাবে বলে দিয়েছেন। দলীয় পরিচয় কেউ ত্রাণ নিয়ে নয়-ছয় করলে ছাড় দেওয়া হবে না।’

করোনায় আক্রান্ত হয়ে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের চিকিৎসকের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে বিএনপির মহাসচিবের বক্তব্যের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘করোনায় মৃত্যুবরণকারী ডাক্তার মঈনের মৃত্যুতে আমরা মর্মাহত। তবে আমরা অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে লক্ষ্য করছি, বিএনপির মহাসচিব তাঁর (মঈন) মৃত্যু নিয়ে অহেতুক দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার সমালোচনা করেছেন।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি মির্জা ফখরুল ইসলামকে সবিনয়ে বলতে চাই, সারা পৃথিবী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। এখানে ধনী-দরিদ্র, চিকিৎসক, রাজনীতিবিদ, সমাজসেবী কেউ রেহাই পাচ্ছেন না। করোনা কাউকে রেহাই দিচ্ছে না।’

১৭ এপ্রিল ঐতিহাসিক মুজিব নগর দিবসের কথা স্মরণ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘১৯৭১ সালের এই দিনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজবুর রহমানের নেতৃত্বে গঠিত স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম স্বাধীন সরকার শপথ গ্রহণ করে। এ দিনই স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র পাঠ করা হয়। আজকের সারা বিশ্ব মহাদুর্যোগ করোনাভাইরাসের কারণে দিনটি পালনের আনুষ্ঠানিকতা পালন করতে না পারলেও চেতনা ও বিশ্বাসে এই ঐতিহাসিক দিনটির তাৎপর্য চিরভাস্বর হয়ে থাকবে।’