জেলেদের চাল আত্মসাতের দায়ে সেই চেয়ারম্যান বরখাস্ত

বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নূরে আলম বেপারীর পালিয়েও শেষ রক্ষা হলো না। বৃহস্পতিবার (২৪ এপ্রিল) বিকালে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ ইউনিয়ন পরিষদ শাখা-১ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করে নূরে আলমকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মুহাম্মাদ ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, নূরে আলম জাটকা নিধন থেকে বিরত থাকা জেলেদের জন্য বরাদ্দকৃত চাল আত্মসাত করে কালোবাজারে বিক্রির উদ্দেশ্যে তার বাড়িতে মজুদ করেন। জেলা প্রশাসক তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থার সুপারিশ করেন। তার অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের জন্য তাকে তার স্বীয় পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো।

প্রসঙ্গত, গত ১৬ এপ্রিল রাতে র‌্যাব-৮ সদস্যরা ইউপি চেয়ারম্যান নূরে আলম বেপারীর বাড়ি অভিযান চালিয়ে সরকারি ১৮৪ বস্তা চাল উদ্ধার করে। অভিযান টের পেয়ে চেয়ারম্যান ও তার দুই ভাই পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় র‌্যাব বাদী হয়ে চেয়ারম্যান নূরে আলম ও তার দুই ভাই শাহে আলম ও সামছুল আলম এবং ডিলার সেন্টু খানের বিরুদ্ধে বাবুগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করে।