সরকার আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীকে জুলুম চালানোর লাইসেন্স দিয়েছে: মির্জা ফখরুল

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীকে জুলুম চালানোর লাইসেন্স দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, আওয়ামী অপশাসনের বিরুদ্ধে কেউ যাতে মাথা উঁচু করতে সাহস না পায় সেজন্য বর্তমান সরকার বিরোধী দলমতকে নিশ্চিহ্ন করতে চায়। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলোর শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ও সরকারদলীয় ক্যাডারদের হামলার মাত্রা বেপরোয়া আকার ধারণ করেছে। বিএনপি এবং এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা-মামলার ধরণ দেখলে মনে হয়-সরকার যেন নেতাকর্মীদের ওপর জুলুম চালানোর লাইসেন্স দিয়েছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে।

রোববার (১৫ মার্চ) ফরিদপুর শহরে মহানগর যুবদলের প্রতিনিধি দলের বৈঠকে হামলা ও গ্রেফতারের প্রতিবাদে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল বলেন, শনিবার ফরিদপুর শহরে মহানগর যুবদলের নেতৃবৃন্দের সাথে কেন্দ্রীয় যুবদলের প্রতিনিধি দলের শান্তিপূর্ণ বৈঠক চলাকালে পুলিশ অতর্কিতে হামলা চালিয়ে নেতৃবৃন্দের ওপর লাঠিচার্জ শুরু করে। বেপরোয়া লাঠিচার্জে যুবদল নেতৃবৃন্দ আহত হন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে যুবদলের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও যুবদলের কেন্দ্রীয় টিম লিডার এ্যাডভোকেট আবু সেলিম চৌধুরীসহ বেশকিছু নেতাকর্মীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়, পরবর্তীতে ফরিদপুর মহানগর যুবদল সভাপতি তাবরিজকে আটক রেখে বাকিদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয়। যুবদলের শান্তিপূর্ণ কর্মীসভায় পুলিশের ন্যাক্কারজনক হামলা এবং ফরিদপুর মহানগর যুবদল সভাপতি তাবরিজকে থানায় আটক রাখার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান বিএনপি মহাসচিব।

তিনি বলেন, ক্ষমতার দাপট এবং ক্ষমতালোভ আওয়ামী সরকারকে হিংস্রতার শেষ সীমানায় নিয়ে গেছে। বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের ওপর জুলুম-নির্যাতন ও গ্রেফতারের মাধ্যমে হেনস্তা করার কূটকৌশল এখন প্রকট আকার ধারণ করেছে। একদিকে দুর্নীতি-দুঃশাসন অন্যদিকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী এবং দলীয় সন্ত্রাসীদের ওপর নির্ভর করে বিরোধী নেতাকর্মীদের শান্তিপূর্ণ যেকোন কর্মসূচিতে হামলা, খুন, জখম চালিয়ে দেশব্যাপী ত্রাসের রাজত্ত কায়েম করা হয়েছে। সন্ত্রাসী কর্ম করে সরকার নিজেদের ক্ষমতাকে দীর্ঘস্থায়ী করতে পারবে না।

Leave a Reply